kalerkantho

শুক্রবার । ১৩ ডিসেম্বর ২০১৯। ২৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ১৫ রবিউস সানি          

গ্যালারি কায়ায় ভিন্নধর্মী চিত্রকর্ম প্রদর্শনী শুরু

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৯ অক্টোবর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



গ্যালারি কায়ায় ভিন্নধর্মী চিত্রকর্ম প্রদর্শনী শুরু

চিত্রকর্ম সংগ্রহ করতে চান অনেকে। এ জন্য সহজ পথটি হচ্ছে পছন্দের ফ্রেমটি কিনে নেওয়া। কিন্তু অনেক ক্ষেত্রেই আকাশছোঁয়া দামের কারণে ইচ্ছা থাকা সত্ত্বেও পছন্দনীয় চিত্রকর্ম সংগ্রহের আগ্রহ দমন করতে হয়। এই বাস্তবতা মাথায় রেখে সাধারণ ও মধ্যবিত্তের জন্য ভিন্নধর্মী এক চিত্রকর্ম প্রদর্শনীর আয়োজন করেছে গ্যালারি কায়া। আগ্রহীরা সাশ্রয়ী মূল্যে ছবি সংগ্রহ করতে পারেন এখান থেকে। বিশেষ এই প্রদর্শনীতে ছবির দাম রাখা হয়েছে চার হাজার থেকে ৭১ হাজার টাকার মধ্যে। প্রদর্শনীতে বাংলাদেশ ও ভারতের স্বনামধন্য শিল্পীদের চিত্রকর্ম স্থান পেয়েছে। রয়েছে বেশ কিছু তরুণ শিল্পীর চিত্রকর্মও। গতকাল শুক্রবার ‘অ্যাফোরডেবল অটাম’ শীর্ষক এ প্রদর্শনীর উদ্বোধন করা হয়।

রঙের গাড়ির প্রথম যৌথ প্রদর্শনী শুরু : জলরঙে ছবি আঁকেন এমন শিল্পীদের সংগঠন রঙের গাড়ি। সংগঠন হিসেবে যাত্রা শুরু ২০১৭ সালে। জলরং চর্চার প্রসার ও বিকাশে, তরুণ শিল্পীদের অনুপ্রেরণা দিতে যাত্রা করে এ সংগঠন। তাদের পক্ষ থেকে এরই মধ্যে আয়োজিত হয়েছে কর্মশালা ও আর্ট ক্যাম্প। কর্মশালায় যাঁরা ভালো করেছেন, তাঁদের মধ্যে বাছাই করা ৪৭ জন শিল্পীর জলরঙে আঁকা চিত্রকর্ম নিয়ে শুরু হয়েছে প্রথম যৌথ প্রদর্শনী। গতকাল বিকেলে শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় চিত্রশালা মিলনায়তনের দ্বিতীয় তলায় শুরু হয়েছে এ প্রদর্শনী।

শিল্পী মহিউদ্দিন আহমেদের প্রদর্শনী শুরু : রাজধানীর আলিয়ঁস ফ্রঁসেজ দো ঢাকার লা গ্যালারিতে শুরু হলো শিল্পী মহিউদ্দিন আহমেদ মহিমের ‘পরিপার্শ্বের প্রভাব-৫’ শীর্ষক একক চিত্র প্রদর্শনী। গতকাল বিকেলে প্রধান অতিথি হিসেবে প্রদর্শনীর উদ্বোধন করেন বিশিষ্ট শিল্পী হামিদুজ্জামান খান। প্রদর্শনীটি চলবে ২৬ অক্টোবর পর্যন্ত। রবিবার সাপ্তাহিক বন্ধ। প্রদর্শনীটি সবার জন্য উন্মুক্ত।

গঙ্গা-যমুনা সাংস্কৃতিক উৎসবে চার নাটক মঞ্চস্থ : রাজধানীতে চলছে গঙ্গা-যমুনা সাংস্কৃতিক উৎসব। গতকাল ছিল এই উৎসবের অষ্টম দিন। এদিন ভারতের একটিসহ মোট চারটি নাটক মঞ্চস্থ হওয়ার পাশাপাশি ছিল পথনাটক, আবৃত্তি, সংগীত ও শিশুদের পরিবেশনা। সকালে ছিল নাটক বিষয়ক সেমিনার।

শিল্পকলা একাডেমির মূল মিলনায়তনের কনফারেন্স সকাল ১১টায় শুরু হওয়া সেমিনারে মূল প্রবন্ধ পাঠ করেন নাট্যজন মামুনুর রশীদ। বিকেলে নাট্যশালার মূল মিলনায়তনে ভারতের নাট্যদল বেলঘরিয়া অভিমুখের নাটক ‘কোজাগরী’ মঞ্চস্থ হয়। এর  নাট্যরূপ ও নির্দেশনায় ছিলেন কৌশিক চট্টোপাধ্যায়। এক্সপেরিমেন্টাল থিয়েটার হলে মঞ্চস্থ হয় অনির্বাণ থিয়েটারের নাটক ‘জিষ্ণুযারা’। এটির নির্দেশনায় ছিলেন আনোয়ার হোসেন। স্টুডিও থিয়েটার হলে নাট্যম বরিশালের নাটক ‘তিলক’ মঞ্চস্থ হয়। এদিন মহিলা সমিতি মিলনায়তনে প্রাচ্যনাটের নাটক ‘পুলসিরাত’ মঞ্চস্থ হয়। এর আগে মুক্তমঞ্চে অনুষ্ঠান শুরু হয় বিকেল ৪টায়। সেখানে পথনাটক পরিবেশন করে মৈত্রী থিয়েটার, রঙ্গপীঠ নাট্যদল। দলীয় আবৃত্তি পরিবেশন করেন প্রকাশের শিল্পীরা। দলীয় সংগীত পরিবেশন করে ভিন্নধারা। 

নৃত্যকলা মিলনায়তনে সন্ধ্যা ৬টায় দর্শনীর বিনিময় পরিবেশিত হয় প্রমা আবৃত্তি সংসদ, চট্টগ্রামের পরিবেশনা ‘সোজন বাদিয়ার ঘাট’ ও বুলবুল একাডেমি অব ফাইন আর্টসের (বাফা) নৃত্যালেখ্য আবহমান বাংলা।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা