kalerkantho

শুক্রবার । ১৩ ডিসেম্বর ২০১৯। ২৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ১৫ রবিউস সানি          

বন্ধ হলো ৪ বাল্যবিয়ে

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১৯ অক্টোবর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



উপজেলা প্রশাসনের হস্তক্ষেপে ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জ ও নান্দাইলে বাল্যবিয়ে থেকে রক্ষা পেয়েছে দুই স্কুলছাত্রী। গতকাল শুক্রবার আরো দুটি বাল্যবিয়ে বন্ধ হয়েছে কিশোরগঞ্জের পাকুন্দিয়ায়।

আঞ্চলিক প্রতিনিধি, ময়মনসিংহ জানান, ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলার উচাখিলা উচ্চ বিদ্যালয়ে নবম শ্রেণির শিক্ষার্থী সোনিয়া আক্তারের বিয়ের দিন ধার্য ছিল গতকাল। সীমারবুক গ্রামের এই কিশোরীর সঙ্গে বিয়ে হওয়ার কথা ছিল ফুলপুর উপজেলার মধুপুর গ্রামের মঞ্জুরুলের সঙ্গে। এ উপলক্ষে সকাল থেকেই কনের বাড়িতে শামিয়ানা টানিয়ে বিয়ের আয়োজন চলছিল। খবর পেয়ে ইউএনও উম্মে রুমানা তুয়া কয়েকজন কর্মচারীকে পুলিশ সহকারে পাঠান। পরে পূর্ণ বয়স না হওয়া পর্যন্ত বিয়ে না দেওয়ার অঙ্গীকারনামা দেন সোনিয়ার বাবা। এদিকে নান্দাইল উপজেলার উদং গ্রামের বাচ্চু মিয়ার মেয়ে মারুফা আক্তারেরও গতকাল বিয়ের আয়োজন চলছিল। এ খবর পেয়ে ইউএনও আব্দুর রহিম সুজন স্থানীয় ইউপি সদস্যকে কনের বাড়িতে পাঠান। পরে এই বিয়েও বন্ধ করে দেওয়া হয়।

পাকুন্দিয়া (কিশোরগঞ্জ) প্রতিনিধি জানান, গতকাল পাকুন্দিয়ার চরলক্ষীয়া ও হাপানিয়া এলাকায় দুটি বাল্যবিয়ে বন্ধ করা হয়েছে। চরলক্ষীয়া গ্রামের সোহেল মিয়ার দশম শ্রেণি পড়ুয়া মেয়ে ও হাপানিয়া এলাকার মোহাম্মদ আলীর নবম শ্রেণি পড়ুয়া মেয়ের গতকাল বিয়ে হওয়ার কথা ছিল। ইউএনও নাহিদ হাসানের নির্দেশে পুলিশসহ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে বাল্যবিয়ে দুটি বন্ধ করে দেন উপজেলা মহিলাবিষয়ক কর্মকর্তা স্বপন কুমার দত্ত।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা