kalerkantho

বুধবার । ১১ ডিসেম্বর ২০১৯। ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ১৩ রবিউস সানি     

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বললেন

বিজিবি-বিএসএফ গোলাগুলি একটা ‘ভুল-বোঝাবুঝি’

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি   

১৯ অক্টোবর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



রাজশাহী সীমান্তে বাংলাদেশ ও ভারতের সীমান্তরক্ষী বাহিনী বিজিবি ও বিএসএফের মধ্যে গোলাগুলির ঘটনাটি অনাকাঙ্ক্ষিত বলে মন্তব্য করেছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান। তিনি বলেন, ভুল-বোঝাবুঝির কারণে এ ঘটনা ঘটেছে। বিজিবি ও বিএসএফ মহাপরিচালকের মধ্যে আলাপ-আলোচনা হচ্ছে। উভয় পক্ষ বসে বিষয়টির সুরাহা করা হবে।

গতকাল শুক্রবার সকাল সাড়ে ১০টায় জাতীয় প্রেস ক্লাবে সম্প্রীতি বাংলাদেশ নামের একটি সংগঠন আয়োজিত আলোচনা অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ইলিশ শিকারে নিষেধাজ্ঞা রয়েছে, সবাই জানেন। পদ্মায় ভারতীয় জেলেদের ইলিশ ধরা নিয়ে জটিলতার পর বিএসএফ সদস্যরা এসেছিলেন। কিন্তু তাঁরা পতাকা বৈঠকের অপেক্ষা না করে চলে যাওয়ার সময় বিজিবি-বিএসফের মধ্যে গোলাগুলির ঘটনা ঘটে। এতে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনীর (বিএফএফ) এক সদস্য নিহত হন।

গত বৃহস্পতিবার বিজিবি বলেছে, ওই দিন সকালে বাংলাদেশের ভেতরে চারঘাট থানার শাহরিয়ার খাল এলাকায় ঢুকে তিন ভারতীয় জেলে মাছ ধরছিল। মা ইলিশ সংরক্ষণ কর্মসূচির আওতায় সেখানে একজন মৎস্য কর্মকর্তার উপস্থিতিতে বিজিবির অভিযান চলছিল। ওই সময় এক ভারতীয় জেলে বিজিবির হাতে আটক হয়। এরপর বিএসএফের চার সদস্য অনুমতি ছাড়াই শূন্য রেখা পেরিয়ে তাদের ছাড়িয়ে নিতে আসেন। তখন বিজিবি পতাকা বৈঠকের মাধ্যমে ভারতীয় জেলেকে হস্তান্তরের কথা বললে বিএসএফ তাকে ছিনিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করে এবং এতে গোলাগুলির সূত্রপাত হয়।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যমের খবর অনুযায়ী, বিজিবি সদস্যদের গুলিতে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনীর হেড কনস্টেবল বিজয় ভান সিং নিহত হয়েছেন। গুলিবিদ্ধ হয়েছেন আরো একজন।

এ বিষয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘দেখুন, এটা একটি অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা। বিজিবি ও বিএসএফের মধ্যে একটি চমৎকার সম্পর্ক রয়েছে। হঠাৎ করে এই অ্যাক্সিডেন্টটা...আমরা সবাই মর্মাহত হয়েছি।’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা