kalerkantho

বুধবার । ১৩ নভেম্বর ২০১৯। ২৮ কার্তিক ১৪২৬। ১৫ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

লৌহজংয়ে ইলিশ নিধন বিরোধী ব্যাপক অভিযান

এসআইসহ গ্রেপ্তার ২০

মুন্সীগঞ্জ প্রতিনিধি   

১৯ অক্টোবর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



মুন্সীগঞ্জের লৌহজং উপজেলার পদ্মায় গত বৃহস্পতিবার রাতে মা ইলিশ নিধনকারী জেলেদের বিরুদ্ধে ব্যাপক অভিযান চালিয়েছে নৌ পুলিশ।

এ সময় জেলেদের মাছধরা ট্রলারের ওপর ৩৩ রাউন্ড গুলি ছোড়া হয়। গ্রেপ্তার করা হয় ১৫ জেলে ও ইলিশ ক্রেতাকে। প্রায় আট লাখ মিটার কারেন্ট জাল জব্দ করে পুড়িয়ে দেওয়া হয়। ধ্বংস করে নদীতে তলিয়ে দেওয়া হয় দুই শতাধিক ইলিশ ধরার নৌকা।

এ ছাড়া গতকাল শুক্রবার ভোরে চাঁদাবাজি ও ইলিশ ছিনতাইয়ের অভিযোগে গ্রেপ্তার হয়েছে ডিবি পুলিশের এক উপপরিদর্শকসহ পাঁচজন। একই সময়ে ইলিশ নিয়ে ঢাকায় যাওয়ার পথে সেনাবাহিনীর দুই সদস্যকে আটক করা হয়।

লৌহজং উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা ইদ্রিস তালুদকার জানান, গত বৃহস্পতিবার রাতে নৌ পুলিশের ডিআইজি মো. আতিকুর ইসলামের নেতৃত্বে লৌহজংয়ের পদ্মার বিভিন্ন পয়েন্টে মা ইলিশ নিধনবিরোধী অভিযান পরিচালনা করা হয়। এ সময় মা ইলিশ শিকারি জেলেদের ধরতে ৩৩ রাউন্ড গুলিবর্ষণ করা হয়। গ্রেপ্তার করা হয় ১৪ জেলে ও ইলিশ ক্রেতাকে। তাদের বিরুদ্ধে লৌহজং থানায় মামলা হয়েছে। এ ছাড়া প্রায় আট লাখ মিটার কারেন্ট জাল জব্দ করে আগুনে পুড়িয়ে দেওয়া হয়। ধ্বংস করা হয় ইলিশ ধরার দুই শতাধিক নৌকা।

মাওয়া নৌ পুলিশ ফাঁড়ির ওসি মো. আমিরুল ইসলাম জানান, গতকাল ভোরে শিমুলিয়া ঘাট থেকে প্রাইভেট কারযোগে ১৫০টি ইলিশ নিয়ে ঢাকায় যাচ্ছিলেন দুই সেনা সদস্য। তাঁদের ধরে মাওয়া নৌ পুলিশ ফাঁড়িতে সোপর্দ করে স্থানীয় লোকজন। ওই দুই সেনা সদস্য হচ্ছেন সেনাবাহিনীর শরীয়তপুরের জাজিরা ক্যাম্পের লেফটেন্যান্ট করপোরাল মো. ইউসুফ আলী (৩৩) ও করপোরাল মো. অলিয়ার রহমান (৩২)। গতকাল বিকেলে সেনাবাহিনীর সংশ্লিষ্ট কম্পানির ক্যাপ্টেন মঈন এসে তাঁদের নিয়ে গেছেন।

লৌহজং থানার ওসি মো. আলমগীর হোসেন জানান, গতকাল ভোরে ডিবি পরিচয়ে পদ্মা নদীতে জেলে ও ইলিশ ক্রেতাদের কাছ থেকে চাঁদাবাজি করছিল পাঁচ ব্যক্তি। এ সময় মাওয়া নৌ পুলিশের সদস্যরা তাদের গ্রেপ্তার করে। ওই ব্যক্তিরা হলেন গাজীপুর মেট্রোপলিটন ডিবি পুলিশের উপপরিদর্শক মো. আল আমিন মীর (৩৬), তাঁর সহযোগী আসাদুল (২৫), আরিফ উদ্দিন (৩৬), লাল মিয়া (৩২) ও আল আমিন হোসেন (৩২)। এ সময় তাঁদের কাছ থেকে ১৮টি ইলিশ জব্দ করা হয়। এ ছাড়া ঘটনাস্থল থেকে ইলিশ ক্রেতা আবু সাঈদকে গ্রেপ্তার করা হয়।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা