kalerkantho

রবিবার। ১৭ নভেম্বর ২০১৯। ২ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ১৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

যাত্রাবাড়ীর ত্রাস ‘শ্যুটার’ লিটন গ্রেপ্তার

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৭ অক্টোবর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



যাত্রাবাড়ীর ত্রাস ‘শ্যুটার’ লিটন গ্রেপ্তার

যাত্রাবাড়ী এলাকার আতঙ্ক হয়ে উঠেছিলেন ‘শ্যুটার’ লিটন (৩২)। তাঁর পুরো নাম ইয়াসিন উদ্দিন ওরফে লিটন। সারাক্ষণ সঙ্গে অবৈধ আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ে চলতেন। যাত্রাবাড়ী জুরাইন এলাকার ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে চাঁদা তুলতেন। চাঁদা না দিলে অস্ত্র বের করতেন। শুধু হুমকি নয়, যাত্রাবাড়ী ও মুগদা এলাকায় দুজনকে হত্যা করারও অভিযোগ রয়েছে তাঁর বিরুদ্ধে। সেই লিটনকে গত মঙ্গলবার তাঁর এক সহযোগীসহ গ্রেপ্তার করেছেন র‌্যাব-১০-এর সদস্যরা। তাঁদের কাছ থেকে উদ্ধার করা হয়েছে  দুটি বিদেশি পিস্তল, একটি ম্যাগাজিন, ২৫ রাউন্ড গুলি, চারটি মোবাইল সেট ও নগদ ৭৪ হাজার ৫০০ টাকা। লিটনের ব্যবহৃত মোটরসাইকেলটিও জব্দ করা হয়েছে। 

র‌্যাব-১০-এর মেজর শাহরিয়ার জিয়াউর রহমান কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘সন্ত্রাসী চাঁদাবাজ গ্রেপ্তার করা র‌্যাবের অভিযানের অংশ। আমরা খোঁজ নিচ্ছি, আরো যারা এসব অপরাধের সঙ্গে জড়িত আছে তাদেরও গ্রেপ্তার করা হবে।’

র‌্যাব সূত্র জানায়, শ্যুটার লিটন ও তাঁর গ্রুপের বিরুদ্ধে র‌্যাব-১০-এর কার্যালয়ে বেশ কিছুদিন ধরে মাদক বিক্রি, চাঁদাবাজি, ডাকাতি, অস্ত্র দেখিয়ে হত্যার হুমকি দেওয়ার অভিযোগ আসছিল। এসব অভিযোগের সত্যতা পেয়ে র‌্যাব তাঁকে গ্রেপ্তারে মাঠে নামে। গত মঙ্গলবার রাতে যাত্রাবাড়ী মোড়ে একটি মোটরসাইকেলের পাশে দাঁড়িয়ে ছিলেন লিটন। তখন তাঁকে গ্রেপ্তার করা হয়। পরে তাঁর দেওয়া তথ্যর ভিত্তিতে সহযোগী জাকির হোসেন ওরফে লারাকেও যাত্রাবাড়ী এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করে র‌্যাব। লারা তাঁর বডিগার্ড হিসেবে কাজ করেন।

র‌্যাবের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে চাঁদাবাজি ও মানুষ হত্যার হুমকির বিষয় স্বীকার করেন লিটন। তাঁর বিরুদ্ধে যাত্রাবাড়ী ও মুগদা থানায় দুটি হত্যা মামলাও রয়েছে। এ ছাড়া অস্ত্র মাদক, অপহরণের পাঁচটি মামলা রয়েছে। এসব মামলায় গ্রেপ্তারের পর জেলেও নেওয়া হয়েছিল তাঁকে, কিন্তু জামিনে বেরিয়ে এসে আবারও ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করেছেন তিনি। তাঁর গ্রুপকে সক্রিয় করে যাত্রাবাড়ী, দোলাইরপাড়, জুরাইন, মুগদা এলাকায় চাঁদাবাজি শুরু করেন।

যাত্রাবাড়ী থানার ওসি মাযহারুল ইসলাম জানান, র‌্যাব গ্রেপ্তারের পর লিটন ও লারাকে যাত্রাবাড়ী থানায় সোপর্দ করে। তাঁদের জিজ্ঞাসাবাদের জন্য রিমান্ড চেয়ে গতকাল আদালতে পাঠানো হয়েছিল। আদালত এক দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা