kalerkantho

শনিবার । ০৭ ডিসেম্বর ২০১৯। ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ৯ রবিউস সানি ১৪৪১     

ধামরাই ও শ্রীপুরে দুই শিশুকে ধর্ষণ

ধামরাই (ঢাকা) প্রতিনিধি ও আঞ্চলিক প্রতিনিধি, গাজীপুর   

১৬ অক্টোবর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



ঢাকার ধামরাই ও গাজীপুরের শ্রীপুরে দুই শিশু ধর্ষণের শিকার হয়েছে। ধামরাইয়ে অভিযুক্ত ধর্ষককে দুই দিনের রিমান্ড দিয়েছেন আদালত। গত সোমবার সকালে ধামরাই পৌরসভার ইসলামপুর মহল্লায় মিন্টু মিয়ার বাসায় শিশুকে ধর্ষণের ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় অভিযুক্ত ধর্ষক গোলাম মোস্তফাকে (৫০) ওই দিন রাতেই আটক করা হয়। তাঁর বাড়ি নেত্রকোনার কেন্দুয়া উপজেলার আশুজিয়া গ্রামে।

ধামরাই থানার ওসি দীপক চন্দ্র সাহা জানান, গতকাল মঙ্গলবার পাঁচ দিনের রিমান্ড চেয়ে মোস্তফাকে আদালতে পাঠালে দুই দিনের রিমান্ড মঞ্জুর হয়।

পুলিশ ও ভুক্তভোগীর পরিবার থেকে জানা গেছে, পোশাক শ্রমিক মা-বাবা শিশুটিকে বাসায় রেখে কর্মস্থলে যান। এ সুযোগে আরেক নারী পোশাক শ্রমিকের স্বামী গোলাম মোস্তফা শিশুটিকে চকোলেট খাওয়ানোর কথা বলে নিজের ভাড়া বাসায় ডেকে নিয়ে ভয়ভীতি দেখিয়ে ধর্ষণ করেন। ধর্ষণের কথা কাউকে বললে শিশুটিকে হত্যা করা হবে—এমন হুমকি দিয়ে তাকে বাসায় পাঠিয়ে দেন অভিযুক্ত ধর্ষক। রাতের বেলায় মা-বাবা কর্মস্থল থেকে বাসায় এলে তাঁদের কাছে বিস্তারিত ঘটনা বলে দেয় শিশুটি। পরে ঘটনাটি পুলিশকে জানালে পুলিশ গোলাম মোস্তফাকে আটক করে।

ওসি দীপক চন্দ্র জানান, শিশুটিকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে (ওসিসি) পাঠানো হয়েছে।

এদিকে গত বৃহস্পতিবার ধামরাইয়ে হাত-পা বেঁধে পর্যায়ক্রমে চার শিশুকে ধর্ষণকারী আফসার উদ্দিনকে আদালতে পাঠিয়েছে পুলিশ। গতকাল মঙ্গলবার রিমান্ড শুনানি শেষে আদালত চার দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

এদিকে গাজীপুরের শ্রীপুরে আপন চাচা ধর্ষণ করেছে সাড়ে চার বছরের এক শিশু মেয়েকে। গুরুতর অবস্থায় মেয়েটিকে প্রথমে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এবং পরে গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

গতকাল দুপুরে উপজেলার গড়গড়িয়া মাস্টারবাড়ি এলাকায় ঘটনাটি ঘটে। রাতে নির্যাতনের শিকার শিশুর বাবা বাদী হয়ে থানায় মামলা করেছেন।

স্বজনরা জানায়, গতকাল দুপুর ১২টার দিকে বাড়ির উঠানে খেলছিল শিশুটি। ওই সময় শিশুটির চাচা তাকে কোলে নিয়ে বাইরে যায়। ঘণ্টাখানেক পরও ফিরে না আসায় খোঁজাখুঁজি শুরু করে তারা। ওই সময় শিশুসহ তার চাচারও কোনো হদিস পাওয়া যাচ্ছিল না। শিশুর বাবা জানান, ব্যাপক খোঁজাখুঁজির পর দুপুর ২টার দিকে পাশের গড়গড়িয়া মাস্টারবাড়ি এলাকায় ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের পূর্ব পাশে একটি সেতুর কাছে ঝোপের ভেতর পাওয়া যায় তাদের। ওই সময় বিবস্ত্র অবস্থায় তাঁর মেয়ের মুখ বাঁধা ছিল।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা