kalerkantho

সোমবার । ১৮ নভেম্বর ২০১৯। ৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ২০ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

সংঘবদ্ধ ধর্ষণের শিকার অপহৃত কিশোরী!

নির্যাতনের শিকার প্রতিবন্ধী ও স্কুলছাত্রী

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১৫ অক্টোবর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



নরসিংদীর মাধবদী থেকে অপহৃত এক কিশোরী (১৩) সংঘবদ্ধ ধর্ষণের শিকার হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। তাকে অপহরণের পর ৯ দিন আটকে রেখে নির্যাতন চালানোর অভিযোগে গ্রেপ্তার করা হয়েছে পাঁচজনকে। বাগেরহাটে বাকপ্রতিবন্ধী এক কিশোরী ধর্ষণের শিকার হয়ে অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়েছে। তৃতীয় শ্রেণির স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগে বরিশালের গৌরনদীতে এক বখাটের নামে মামলা হয়েছে। বিস্তারিত কালের কণ্ঠ’র প্রতিনিধিদের পাঠানো খবরে—

নরসিংদী : গ্রেপ্তারকৃত ব্যক্তিরা হলো, নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজার থানার দেবাই গ্রামের মো. সুজন (২৭), তার সহযোগী একই থানার সাতগ্রাম গ্রামের রুবেল মিয়া (২৬), ময়মনসিংহ সদর থানার রহমতপুর গ্রামের ফয়সাল মিয়া (২০), লালমনিরহাট সদরের চরকুলাঘাপ গ্রামের আছাদুল ইসলাম (১৯) ও মানিকগঞ্জের হরিরামপুরের চালা গ্রামের শাকিল মোল্লা (২২)।

পুলিশ ও ভুক্তভোগীর পরিবার সূত্রে জানা গেছে, গত ৫ অক্টোবর ওই কিশোরীকে মাধবদী থানার দরগাবাড়ী এলাকা থেকে অপহরণ করা হয়। চার দিন পর কিশোরীর বাবার মোবাইলে ফোন করে দুই লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করে অপহরণকারীরা। গত ১২ অক্টোবর মাধবদী থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা করেন কিশোরীর বাবা। পরে রুবেল নামে অপহরণকারী চক্রের এক সদস্য মুক্তিপণের টাকা নিতে আশুলিয়ার নরসিংহপুর এসে পুলিশের হাতে আটক হয়। তার দেওয়া ঠিকানা অনুযায়ী সাভারের গোমাইল উত্তরপাড়ার একটি বাড়ি থেকে অপহৃত কিশোরীকে উদ্ধার করে পুলিশ।

বাগেরহাট : অভিযুক্ত রনি পাইক সদর উপজেলার বেমরতা ইউনিয়নের জয়গাছী গ্রামের হাবিবুর রহমান পাইকের ছেলে। সে বাকপ্রতিবন্ধী ওই কিশোরীর ছোট ভাইয়ের গৃহশিক্ষক ছিল। ওই কিশোরী অসুস্থ হয়ে পড়ায় তাকে বাগেরহাট সদর হাসপাতালে ভর্তি করে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। ঘটনা জানাজানি হলে ভুক্তভোগীর মা বাদী হয়ে গত রবিবার মামলা দায়ের করেছেন।

গৌরনদী (বরিশাল) : ওই ছাত্রী লক্ষ্মী পূজার জন্য রবিবার সকালে ইছাকুড়ি বাকাই গ্রামের বিল্লধর সরকারের শেফালীগাছ থেকে ফুল তুলে আনতে যায়। এ সময় বিল্লধরের ছেলে বীর মোহন সরকার ওরফে রনি (৩০) ভয়ভীতি দেখিয়ে ছাত্রীকে ধর্ষণের চেষ্টা চালায়। এ সময় ভুক্তভোগী চিৎকার দিলে বীর মোহন তাকে ছেড়ে দেয়। পরে ভুক্তভোগীর মা গৌরনদী মডেল থানায় মামলা করেন।

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা