kalerkantho

রবিবার । ০৮ ডিসেম্বর ২০১৯। ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ১০ রবিউস সানি ১৪৪১     

সভ্যভাবে ক্ষমতা থেকে সরে দাঁড়ান : ড. কামাল

পুলিশি বাধায় পণ্ড ঐক্যফ্রন্টের শোকযাত্রা

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৪ অক্টোবর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বুয়েট ছাত্র আবরার ফাহাদের হত্যার প্রতিবাদে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট তাদের পূর্বঘোষিত কর্মসূচি আলোচনাসভা করতে পারলেও নাগরিক শোকযাত্রা করতে পারেনি। সভা শেষে শোকযাত্রা বের হলে তা পুলিশি বাধায় পণ্ড হয়ে যায়।

এর আগে আলোচনাসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে ঐক্যফ্রন্টের শীর্ষ নেতা ড. কামাল হোসেন প্রধানমন্ত্রীকে ইঙ্গিত করে বলেন, “আমরা দেখেছি ৩০ ডিসেম্বরের নির্বাচন ২৯ তারিখ রাতে হয়েছে। পরে ৩০ তারিখ সকালেই আপনি বলেছেন, ‘আরো পাঁচ বছরের জন্য হয়ে গেছি, আপনাদেরকে ধন্যবাদ দিচ্ছি।’ কাকে ধন্যবাদ দিচ্ছেন? আমরা কেউ সেই প্রতারণার ধন্যবাদ নেব না। আমরা একটি নাটক দেখেছি। আপনি তো নাট্যকার, কোনো নেত্রী নন। সভ্যভাবে আপনি ক্ষমতা থেকে সরে দাঁড়ান। নির্বাচন ঘোষণা করেন, যেখানে অবাধ, নিরপেক্ষ নির্বাচনের জন্য একটি নির্বাচন কমিশন দায়িত্বে থাকবে।”

তিনি বলেন, ‘তৃতীয়বার আপনাকে কেউ নির্বাচিত করেনি। এর আগেরবার নির্বাচিত করেছে কি না, সেই বিতর্কে আমি যাচ্ছি না। তৃতীয়বার আমি সাক্ষ্য দেব আপনাকে কেউ নির্বাচিত করে নাই। ৩০ ডিসেম্বর সকালে আপনি স্বঘোষিত নির্বাচিত হয়েছেন।’

ড. কামাল বলেন, ‘যারা দেশের জনগণের মৌলিক অধিকারে বাধা দিচ্ছে, এদের নাম-ঠিকানা, বাবার নাম আমাদের লিপিবদ্ধ করে রাখতে হবে। এরা দেশদ্রোহী, শাস্তি তো হবেই, কঠিন শাস্তি হবে।’

খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবি করে ড. কামাল বলেন, ‘খালেদা জিয়ার শরীর সত্যিকার আরো গুরুতরভাবে খারাপ হয়েছে, উনার বেঁচে থাকার ব্যাপারে সবাই এখন আশঙ্কা করছে, সে কথা আমি একশবার বলব, এটার কোনো যুক্তি নাই। বিরোধী দলের নেত্রী, তিনবার উনি প্রধানমন্ত্রী ছিলেন। উনার অসুখ হওয়ার পরে উনাকে মুক্ত করা হবে না, উনি চিকিৎসা পাবেন না—এটা কল্পনাই করা যায় না। এটা আমাদের সংবিধানের দাবি। আমি এই দাবির প্রতি সমর্থন করি।’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা