kalerkantho

রবিবার। ১৭ নভেম্বর ২০১৯। ২ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ১৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

প্রশিক্ষণ সমন্বয়ককে পেটাল চালক!

পঞ্চগড় শিক্ষা অফিস

পঞ্চগড় প্রতিনিধি   

১৩ অক্টোবর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



পঞ্চগড় জেলা শিক্ষা অফিসের প্রশিক্ষণ সমন্বয়ক আমিনুল ইসলামকে শিক্ষা কর্মকর্তার গাড়িচালক ইমতিয়াজ আলী বাবলা মারধর করেছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। গতকাল শনিবার দুপুরে পঞ্চগড় বিপি সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ে জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা হিমাংশু কুমার রায় সিংহের সামনে এ ঘটনা ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, গতকাল সকালে জেলার মাধ্যমিক পর্যায়ের শিক্ষকদের নিয়ে ছয় দিনব্যাপী সৃজনশীল প্রশ্নপত্র প্রণয়ন প্রশিক্ষণ কর্মশালার আয়োজন করে জেলা শিক্ষা অফিস। পঞ্চগড় বিপি সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ে অনুষ্ঠিত এ কর্মশালায় পাঁচ উপজেলা থেকে ২০০ জন শিক্ষক অংশ নেন। দুপুরে খাবার সময় বিপি সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবনের নিচতলায় আসেন জেলা শিক্ষা কর্মকর্তার গাড়িচালক ইমতিয়াজ আলী বাবলা। এ প্রশিক্ষণের খাবার কেনার দায়িত্ব না পাওয়ায় জেলা প্রশিক্ষণ সমন্বয়ককে গালাগাল করতে থাকেন বাবলা। একপর্যায়ে গাড়িচালক বাবলা লাঠি দিয়ে ওই কর্মকর্তাকে মারধর করেন। পরে পঞ্চগড় সদর থানা পুলিশ এসে ওই কর্মকর্তাকে উদ্ধার করে পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। পাশাপাশি বাবলাকে আটক করে থানায় নিয়ে যায় পুলিশ। হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার সময় ওই কর্মকর্তাকে অসহায়ের মতো কাঁদতে দেখা যায়।

অভিযোগ আছে, চতুর্থ শ্রেণির কর্মচারী হয়েও গাড়িচালক ইমতিয়াজ আলী বাবলা শিক্ষক ও কর্মকর্তাদের ওপর প্রভাব খাটিয়ে থাকেন। আর্থিক অনিয়ম করে বাবলা কয়েক কোটি টাকার মালিক বনে গেছেন। পঞ্চগড়, রংপুরসহ বিভিন্ন স্থানে তাঁর ফ্ল্যাটও আছে।

জেলা প্রশিক্ষণ সমন্বয়ক আমিনুল ইসলাম অভিযোগ করেন, প্রতিবছর জেলা শিক্ষা অফিসের বিভিন্ন কার্যক্রমে প্রভাব বিস্তার করে আসছিলেন বাবলা। খাবার পরিবেশনসহ বিভিন্নভাবে তিনি অর্থ আত্মসাৎ করতেন। এবার ২০০ জনের প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করা হলে বাবলা ১৮০ জনকে প্রশিক্ষণ দিতে বলেন। এবার অনিয়ম করতে না পেরে বাবলা তাঁর ওপর হামলা করেছেন।

জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা হিমাংশু কুমার রায় সিংহ বলেন, ‘আমার সামনেই ঘটনাটি ঘটেছে। বাবলা আমার কথাও শোনেননি। ঘটনার পর বিষয়টি জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার ও মাধ্যমিক শিক্ষা ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরের উপপরিচালককে জানানো হয়েছে।’ মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর রংপুর অঞ্চলের উপপরিচালক মো. আকতারুজ্জামান বলেন, জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা বিষয়টি জানিয়েছেন। বিষয়টি লিখিতভাবে অবহিত করতে বলেছি।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা