kalerkantho

সোমবার । ২০ জানুয়ারি ২০২০। ৬ মাঘ ১৪২৬। ২৩ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১     

তিন উপাচার্যের বিরুদ্ধে জাবিতে বিক্ষোভ

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি   

২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



গোপালগঞ্জের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (বশেমুরবিপ্রবি), জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় (জাবি) ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) উপাচার্যের বিরুদ্ধে গতকাল শনিবার ক্যাম্পাসে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছেন জাবির শিক্ষার্থীরা। বশেমুরবিপ্রবির শিক্ষার্থীদের ওপর হামলা, জাবি উপাচার্যের বিরুদ্ধে ‘দুর্নীতির’ অভিযোগের তদন্ত দাবি ও ভর্তি পরীক্ষার হলে তাঁকে অবাঞ্ছিত ঘোষণা এবং ঢাবি উপাচার্যের বিরুদ্ধে ঢাকসু নির্বাচনে অংশ নিতে ৩৪ ছাত্রলীগ নেতাকে চিরকুটের মাধ্যমে একটি কোর্সে ভর্তির সুযোগ দেওয়ার অভিযোগ করে এ বিক্ষোভ করা হয়।

কর্মসূচিতে বামপন্থী, সাংস্কৃতিক সংগঠন ও সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের নেতাকর্মীসহ বিভিন্ন বিভাগের প্রায় ১০০ শিক্ষার্থী অংশ নেন। তিন উপাচার্যের কর্মকাণ্ডের জন্য ধিক্কার জানিয়ে স্লোগান দেওয়া হয়।

বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে মুরাদ চত্বর থেকে ‘দুর্নীতির বিরুদ্ধে জাহাঙ্গীরনগর’ ব্যানারে বিক্ষোভ মিছিলটি শুরু হয়ে ক্যাম্পাসের গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ করে শহীদ মিনার পাদদেশে যায়। সেখানে সংক্ষিপ্ত সমাবেশের মধ্য দিয়ে কর্মসূচি শেষ হয়। এ সময় আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা বলেন, শিক্ষা ও সন্ত্রাস একসঙ্গে চলে না, শিক্ষা ও দুর্নীতি একসঙ্গে চলে না। অবিলম্বে এসব ঘটনার বিচার করতে হবে। জড়িতদের শাস্তির আওতায় আনতে হবে।

সমাবেশে জাবি ছাত্র ইউনিয়নের সদস্য রাকিবুল রনি বলেন, ‘গোপালগঞ্জের বশেমুরবিপ্রবির শিক্ষার্থীরা আন্দোলন করছে একজন নৈতিক চরিত্রহীন দুর্নীতিগ্রস্ত উপাচার্যের পতন চেয়ে। সেই আন্দোলন বন্ধ করতে সেখানকার উপাচার্য স্থানীয় সন্ত্রাসীদের দিয়ে তাদের ওপর হামলা চালিয়েছেন। ঢাবির ও জাবির উপাচার্যেরও একই চরিত্র। তাঁদের কারোরই উপাচার্যের আসনে থাকার নৈতিক অধিকার নেই।’

সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের আহ্বায়ক শাকিল উজ্জমান বলেন, ‘জাতির ফুসফুস হচ্ছে বিশ্ববিদ্যালয়। সারা বাংলার ছাত্রসমাজ ঐক্যবদ্ধ আছে। দুর্নীতিগ্রস্ত গোপালগঞ্জের উপাচার্যকে পদত্যাগ করতে হবে। না হলে ছাত্রসমাজ ঐক্যবদ্ধ আন্দোলন গড়ে তুলবে। আমরা গোপালগঞ্জের ভাই-বোনদের পাশে আছি।’ সমাজতান্ত্রিক ছাত্রফ্রন্ট জাবি শাখার সাংগঠনিক সম্পাদক শোভন রহমান বলেন, ‘এভাবে সন্ত্রাসীদের দিয়ে হামলা করে কিংবা বিভিন্ন ছলচাতুরীর আশ্রয় নিয়ে পৃথিবীতে কেউ টিকে থাকতে পারেনি। এসব উপাচার্য ছাত্র আন্দোলনের মাধ্যমে পদত্যাগ করতে বাধ্য হবেন।’

আন্দোলনকারীরা জাবি উপাচার্যকে পদত্যাগ ও অবিলম্বে তাঁর বিরুদ্ধে ওঠা ‘দুর্নীতির’ অভিযোগের তদন্তের আহ্বান জানান। নয়তো তাঁকে দুর্বার ছাত্র আন্দোলনের মাধ্যমে পদত্যাগে বাধ্য করা হবে।

বিক্ষোভ মিছিলে অংশ নেন জাহাঙ্গীরনগর সাংস্কৃতিক জোটের সাধারণ সম্পাদক শহীদুল ইসলাম পাপ্পু, ছাত্র ইউনিয়ন জাবি সংসদের কার্যকরী সদস্য রাকিবুল রনি, সমাজতান্ত্রিক ছাত্রফ্রন্টের সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ দিদার, সাংগঠনিক সম্পাদক শোভন রহমান, বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ জাবি শাখার মুখপাত্র খান মুনতাসির আরমান ও আহ্বায়ক শাকিল উজ্জামান।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা