kalerkantho

শনিবার । ১৪ ডিসেম্বর ২০১৯। ২৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ১৬ রবিউস সানি               

বোয়াংছড়িতে এক দিনে চার ডেঙ্গু রোগী শনাক্ত

নিজস্ব প্রতিবেদক, বান্দরবান   

২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বান্দরবানের রোয়াংছড়ি উপজেলায় এক দিনে চারজন ডেঙ্গু রোগী শনাক্ত করা হয়েছে। গতকাল শনিবার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে গিয়ে এ তথ্য জানা গেছে।

ডেঙ্গু আক্রান্তরা হলেন উ ক্য সাই মারমা, উয়াই সিং মারমা, খ্যা মা চিং মারমা ও বিজন তঞ্চঙ্গ্যা (৪১)।

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা (ইউএইচএফপিও) ডা. মং হ্লা প্রু মারমা জানান, জ্বরে আক্রান্ত হয়ে গতকাল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ২৩ জন রোগী রক্ত পরীক্ষা করাতে আসে। এ সময় চারজনের রক্তে ডেঙ্গু ভাইরাস এবং একজনের রক্তে ম্যালেরিয়ার জীবাণু পাওয়া যায়। তিনি আরো জানান, নতুন করে চারজন রোগী শনাক্ত হওয়ায় এ উপজেলায় ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ২৫-এ গিয়ে দাঁড়াল।

মং হ্লা প্রু জানান, রোয়াংছড়ি এলাকায় ডেঙ্গু ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার তেমন একটা আশঙ্কা এই মুহূর্তে নেই। তবে রাজধানী ঢাকাসহ অনান্য শহর থেকে যেসব রোগী ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে এখানে আসছে তাদের কারণে স্থানীয় লোকজন ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে পড়ছে।

রোয়াংছড়ি হাসপাতাল সূত্র জানায়, সরকারের পাঠানো মেডিক্যাল কিট দিয়ে ডেঙ্গু রোগী শনাক্ত করার সুযোগ থাকলেও মুমূর্ষু রোগীদের রক্ত সঞ্চালন করা ১০ শয্যাবিশিষ্ট এই হাসপাতালে সম্ভব নয়। ফলে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে জটিল রোগীদের জেলা সদর হাসপাতালে স্থানান্তর করতে হচ্ছে।

অনুসন্ধানে দেখা গেছে, চারজন কনসালট্যান্ট ও একজন আবাসিক চিকিৎসকসহ এই হাসপাতালে আটজন চিকিৎসক থাকার কথা, কিন্তু বর্তমানে ডা. মাসুদ কবির ছাড়া এই হাসপাতালে আর কোনো ডাক্তার বা কনসালট্যান্ট পদায়ন করা হয়নি। ডা. মাসুদ কবিরকে একাই আবাসিক মেডিক্যাল অফিসার (আরএমও), জেনারেল মেডিক্যাল অফিসার (এমও) এবং ইমার্জেন্সি মেডিক্যাল অফিসারের (ইএমও) দায়িত্ব পালন করতে হচ্ছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা