kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ০৫ ডিসেম্বর ২০১৯। ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ৭ রবিউস সানি ১৪৪১     

দুই বাল্যবিয়ে

বাধা পেয়ে বরের বাড়িতে হলো আনুষ্ঠানিকতা

আঞ্চলিক প্রতিনিধি, ময়মনসিংহ   

২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



কনে ইসরাত জাহান ও নুসরাত জাহানের বয়স যথাক্রমে ১৪ ও ১৫ বছর। প্রধান শিক্ষক ও সহপাঠীদের বাধার মুখে পূর্ণ বয়স না হলে বিয়ে দেওয়া হবে না মর্মে তাদের দুই পরিবারই অঙ্গীকার করেছিল। তবে এবার লুকিয়ে তাদের বিয়ে দেওয়া হয়েছে। ‘উটকো ঝামেলা’ এড়াতে এবার গভীর রাতে দুই কনেকে বরের লোকজন উঠিয়ে নিয়ে যায়। পরে গতকাল শনিবার পৃথক স্থানে গোপনীয়তার সঙ্গে ওই দুই ছাত্রীর বিয়ে সম্পন্ন হয়েছে। এ দুটি বাল্যবিয়ের ঘটনা ঘটেছে ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলার দুটি ইউনিয়নে।

স্থানীয় সূত্র জানায়, উপজেলার চরউত্তরবন্দ উচ্চ বিদ্যালয়ে অষ্টম শ্রেণিতে পড়ে ইসরাত। একই বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণিতে পড়ে নুসরাত। তাদের বিয়ের কথা উঠলে বাধা হয়ে দাঁড়ায় বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও সহপাঠীরা। এ পরিস্থিতিতে কনের বাড়িতে বিয়ের অনুষ্ঠান না করে ওই দুই স্কুলছাত্রীকে বরের লোকজনের কাছে উঠিয়ে দেওয়া হয়। গতকাল পূর্বনির্ধারিত দিনক্ষণেই বিয়ের কাজ সম্পন্ন করে বউভাত অনুষ্ঠিত হয়।

স্থানীয় সূত্র জানায়, ইসরাত জাহান হচ্ছে চরবেতাগৈর ইউনিয়নের চরকোমড়ভাঙ্গা গ্রামের রায়হানের মেয়ে। তার বিয়ে হয়েছে ঈশ্বরগঞ্জের উচাখিলা ইউনিয়নের একটি গ্রামে। অন্যদিকে নুসরাত জাহান হচ্ছে পাশের চরউত্তরবন্দ গ্রামের মো. হুমায়ুন শিকদারের মেয়ে। তার বিয়ে হয়েছে একই উপজেলার মগটুলা ইউনিয়নের নাউড়ি গ্রামের ইদ্রিস ভুইয়ার ছেলে রুবেল ভুইয়ার সঙ্গে। এ বিয়ের অনুষ্ঠানের জন্য বরের পক্ষ থেকে কার্ড করে দাওয়াতও দেওয়া হয়। কিন্তু প্রশাসনের পক্ষ থেকে কোনো ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি।

বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রেহেনা সুলতানা জানান, ওই দুই ছাত্রী হঠাৎ বিদ্যালয়ে আসা বন্ধ করে দেয়। পরে জানা যায় তাদের বিয়ে ঠিক হয়েছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা