kalerkantho

‘পদ্মা সেতুতে মাথা লাগবে’ গুজব

গ্রেপ্তার নাজমুলকে জামিন দেননি হাইকোর্ট, রুল

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১২ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



‘পদ্মা সেতু নির্মাণে এক লাখ মানুষের মাথা লাগবে’—এমন গুজব ছড়ানোর অভিযোগে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে করা মামলায় গ্রেপ্তার নড়াইলের নাজমুল হোসেন বাবুকে জামিন দেননি হাইকোর্ট। তবে তাঁকে কেন জামিন দেওয়া হবে না সে প্রশ্নে রুল জারি করেছেন আদালত। 

বিচারপতি মো. শওকত হোসেন ও বিচারপতি ফাতেমা নজীবের হাইকোর্ট বেঞ্চ গতকাল এই রুল জারি করেন। সংশ্লিষ্টদের চার সপ্তাহের মধ্যে রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে। নাজমুল হোসেন বাবুর পক্ষে আইনজীবী ছিলেন  হেলাল উদ্দিন মোল্লা। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল এ কে এম আমিন উদ্দিন মানিক।

নাজমুলের বিরুদ্ধে তাঁর ফেসবুকের মেসেঞ্জার আইডি থেকে ‘পদ্মা সেতু নির্মাণে এক লাখ কাটা মাথা লাগবে’ উল্লেখ করে একটি পোস্ট দিয়ে বিভিন্নজনের কাছে পাঠানোর অভিযোগে গত ২৫ জুলাই নড়াইল সদর থানায় মামলা করা হয়। মামলায় বলা হয়, নাজমুল তাঁর পোস্টে লেখেন, “পদ্মা সেতু নির্মাণে বাধার সৃষ্টি হওয়ায় এক লাখ বা তারও অধিক মানুষের মাথা প্রয়োজন। পদ্মা সেতুর নির্মাণকাজ চালিয়ে যেতে তাই বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে দেশজুড়ে ৪২টি দল বের হয়েছে এই মাথা সংগ্রহের জন্য। এরা পথেঘাটে, খেলার মাঠে, হাট-বাজারে ঘুরে বেড়ায়। এদের কাছে আছে ধারালো ছুরি ও বিষাক্ত গ্যাস, যা ১০-১৫ হাত দূর থেকে স্প্রে করলেই মানুষ অজ্ঞান হয়ে যায়। তখন তারা মাথা কেটে নিয়ে যায়। তাদের লক্ষ্য মাথা কাটা। ইতিমধ্যে খুলনায় অনেক মাথা কেটে নেওয়া হয়েছে। তাই সাবধান থাকবেন, বাসার সবাইকে সতর্ক করে দেবেন এবং বাসায় কোনো ভিক্ষুক এলে সাবধানে থাকবেন।”

মন্তব্য