kalerkantho

শুক্রবার । ১৫ নভেম্বর ২০১৯। ৩০ কার্তিক ১৪২৬। ১৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

নীতিমালা পেল এসএমই খাত

ক্ষুদ্র উদ্যোক্তাদের মর্টগেজ ছাড়া ঋণ দেওয়ার সুপারিশ

৪ ডিসেম্বর জাতীয় বস্ত্র দিবস

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১০ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



এসএমই বা ক্ষুদ্র ও মাঝারি উদ্যোগের জন্য একটি নীতিমালা অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভা। এতে বিশেষ ফান্ড গঠন করে ক্ষুদ্র উদ্যোক্তাদের জামানতবিহীন ঋণ দেওয়া ও নারী উদ্যোক্তাদের বিষয়টি আলাদাভাবে বিবেচনায় রাখা হয়েছে। গতকাল সোমবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে তাঁর কার্যালয়ে মন্ত্রিসভার ১৬তম বৈঠকে ‘এসএমই নীতিমালা-২০১৯’ অনুমোদনের পাশাপাশি বিআইডাব্লিউটিসি আইনও অনুমোদন দেওয়া হয়। একই সঙ্গে প্রতিবছর ৪ ডিসেম্বরকে জাতীয় বস্ত্র দিবস হিসেবে পালনের ঘোষণা দেওয়া হয়।

বৈঠক শেষে সচিবালয়ে মন্ত্রিপরিষদসচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম সাংবাদিকদের জানান, এর আগে এসএমই খাতসংক্রান্ত কোনো নীতিমালা ছিল না। এই খাতে প্রায় ৭৮ লাখ ক্ষুদ্র ও মাঝারি প্রতিষ্ঠান আছে। প্রতি অর্থবছরে এসব প্রতিষ্ঠান থেকে জিডিপির ২৫ শতাংশ আসে। তিনি বলেন, নীতিমালায় ছয়টি বিষয়কে গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে। যেসব ক্ষুদ্র ও মাঝারি উদ্যোক্তা এসএমই ফাউন্ডেশনের সদস্য থাকবেন তাঁরা ছয়টি বিষয়ে সুবিধা পাবেন। সেগুলো হলো ঋণ প্রদান, প্রযুক্তি ও উদ্ভাবনের সুযোগ, বাজারে প্রবেশের সুবিধা, শিক্ষা ও প্রশিক্ষণ, ব্যবসায় সমর্থন এবং তথ্য দিয়ে সহযোগিতা করা।

মোহাম্মদ শফিউল আলম বলেন, নতুন হওয়া এই নীতিমালায় এসএমই ক্রেডিট গ্যারান্টি ফান্ড চালু করার কথা বলা আছে। এটা করা হলে মর্টগেজ ছাড়াই উদ্যোক্তারা ঋণ পেতে পারবেন; সে জন্য এই ফান্ড গঠন হবে। তিনি জানান, নারী উদ্যোক্তাদের সক্ষমতা ও দক্ষতা বাড়ানোর জন্য প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করা, তাঁদের জন্য আলাদা তহবিল গঠন ও ঋণ দেওয়া, নারীদের উদ্যোক্তা হতে উদ্বুদ্ধকরণ, নারীদের উদ্যোক্তা হওয়ার ক্ষেত্রে কোনো বাধা এলে তা অপসারণে সহযোগিতা করার কথাও নীতিমালায় উল্লেখ করা হয়েছে। এই নীতির কৌশল বাস্তবায়নে শিল্পমন্ত্রীর নেতৃত্বে একটি কমিটি থাকবে। সেখানে শিল্প প্রতিমন্ত্রী ভাইস প্রেসিডেন্ট এবং বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নরসহ অন্তত ২৯ জন সচিব সদস্য থাকবেন। বেসরকারি খাতের বিশিষ্ট ব্যক্তিদের নিয়ে মোট ৩৭ জন সদস্য থাকবেন।

বিআইডাব্লিউটিসি আইন : সরকারি নৌপরিবহন সংস্থা বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন করপোরেশনের (বিআইডাব্লিউটিসি) অনুমোদিত ও পরিশোধিত মূলধনের পরিমাণ ৫০০ কোটি টাকা করার বিধান রেখে ‘বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন করপোরেশন আইন-২০১৯’-এর খসড়া নীতিগত অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভা। মন্ত্রিপরিষদসচিব বলেন, পাকিস্তান আমল থেকে চলে আসা এসংক্রান্ত আইনটি ১৯৭২ সালে প্রেসিডেনশিয়াল অর্ডারে চালু ছিল। এরপর ১৯৭৬ ও ১৯৭৯ সালে এটি সংশোধন হয়। আইনটি সামরিক আমলের হওয়ায় এ জন্য আপডেট করে বাংলায় করার সিদ্ধান্ত রয়েছে, সেই হিসাবে নতুন আইনটি করা হয়েছে।

নতুন আইনের পরিবর্তনগুলো তুলে ধরে মন্ত্রিপরিষদসচিব বলেন, করপোরেশন পরিচালনার জন্য একজন চেয়ারম্যান ও চারজন পরিচালক থাকার বিধান আগেই ছিল। এখন একজন খণ্ডকালীন পরিচালক রাখার নিয়ম যোগ করা হয়েছে, যিনি নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব পদমার্যাদার অধিকারী কর্মকর্তা হবেন।

বস্ত্র দিবস ৪ ডিসেম্বর : মন্ত্রিসভার গতকালের বৈঠকে প্রতিবছর ৪ ডিসেম্বর জাতীয় বস্ত্র দিবস পালনের ঘোষণা দেওয়া হয়েছে। এটি ‘খ’ ক্রমিকের মর্যাদার দিবস হবে। মন্ত্রিপরিষদসচিব বলেন, বস্ত্র বাংলাদেশের সবচেয়ে বেশি বৈদেশিক মুদ্রা আহরণকারী খাত। তাই এই খাতটির জন্য বিশেষ এক দিন স্মরণের মাধ্যমে নতুন মাত্রা যোগ করতে চায় সরকার। তিনি বলেন, এর মাধ্যমে মূলত বস্ত্র খাতের গুরুত্ব তুলে ধরে বিভিন্ন কার্যক্রম গ্রহণ করা হবে। ফলে এই খাতে আরো এগিয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা তৈরি হবে।

এদিকে মন্ত্রিসভা বৈঠক শুরু হওয়ার আগে বিশিষ্ট পরমাণুবিজ্ঞানী ও বাংলাদেশ পরমাণু শক্তি কমিশনের সাবেক চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. নঈম চৌধুরীর মৃত্যুতে মন্ত্রিপরিষদ গভীর শোক প্রকাশ করেছে। এ ছাড়া নারী টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ বাছাই পর্বে বাংলাদেশ নারী ক্রিকেট দল চ্যাম্পিয়ন হওয়ায় এবং বিশ্বকাপের মূল পর্বে অংশগ্রহণের সুযোগ পাওয়ায় মন্ত্রিসভা নারী ক্রিকেট দলকে অভিনন্দন জানিয়েছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা