kalerkantho

রবিবার। ১৭ নভেম্বর ২০১৯। ২ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ১৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

রাজশাহীর অর্ধশত মুুক্তিযোদ্ধার বিবৃতি

এমপি ফারুক চৌধুরীর বাবা রাজাকার ছিলেন

নিজস্ব প্রতিবেদক, রাজশাহী   

৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



রাজশাহীর অর্ধশত মুক্তিযোদ্ধা দাবি করেছেন, রাজশাহী-১ (গোদাগাড়ী-তানোর) আসনের এমপি ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ওমর ফারুক চৌধুরীর বাবা আজিজুল হক চৌধুরী মুক্তিযুদ্ধের সময় শান্তি কমিটির সদস্য ছিলেন। তখন আজিজুল হক চৌধুরী পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর সহায়তাকারী। এক বিবৃতিতে মুক্তিযোদ্ধারা এ দাবি করেন।

সম্প্রতি জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান আসাদ জাতীয় শোক দিবসের একটি অনুষ্ঠানে ওমর ফারুক চৌধুরীকে ‘রাজাকারের সন্তান’ হিসেবে বলেন। এ ছাড়া একটি জাতীয় দৈনিকের প্রতিবেদনে দাবি করা হয়, ওমর ফারুক চৌধুরী ছাত্রজীবনে বঙ্গবন্ধুর খুনিদের গড়া দল ‘ফ্রিডম পার্টি’ ও ছাত্রদল করেছেন। এ নিয়ে রাজশাহীর রাজনৈতিক অঙ্গনে এখন সমালোচনার ঝড় ওঠে।

৫০ জন মুক্তিযোদ্ধার বিবৃতিতে বলা হয়, ‘আমরা রাজশাহীর মুক্তিযোদ্ধাবৃন্দ মুক্তিযুদ্ধের বিরুদ্ধ-শক্তি সম্পর্কে অবগত। পত্রিকায় প্রকাশিত বক্তব্যে ওমর ফারুক চৌধুরী ফ্রিডম পার্টি ও বিএনপি রাজনীতির সাথে যুক্ত ছিলেন বলে বলা হয়েছে। আমরা মনে করি, বক্তব্যটি সত্য। যারা বঙ্গবন্ধুর হত্যাকারীদের সঙ্গে রাজনীতি করেছে তাদের বর্জন করা স্বাধীনতার পক্ষের সকলের দায়িত্ব।’

বিবৃতিতে আরো বলা হয়, ‘ওমর ফারুক চৌধুরীর পিতা শান্তি কমিটি রাজশাহী জেলার সদস্য ছিলেন। সরকার এর সত্যতা যাচাই করার জন্য তদন্ত করলে আমাদের বক্তব্য সঠিক প্রমাণিত হবে।’

এ বিষয়ে জানতে চাইলে এমপি ওমর ফারুক চৌধুরী বলেন, ‘আমার বাবাকে পাকিস্তানি বাহিনী একাত্তরে হত্যা করেছে। আমার বাবা সম্পর্কে মেয়র ও তাঁর ভাইকে জিজ্ঞাসা করেন। তাঁরাই বলতে পারবেন তিনি কেমন ছিলেন। আমরা রাজশাহীর আদি মানুষ।’

বিবৃতিতে স্বাক্ষরদানকারী মুক্তিযোদ্ধারা হলেন রাজশাহী পশ্চিমাঞ্চল সমবায় সমিতি লিমিটেডের সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা আবদুল আজীজ, মুক্তিযোদ্ধা নুরুল ইসলাম, আবদুল মবিন সিদ্দিক, মনোয়ারুল ইসলাম, শুকুর উদ্দিন, আমিনুল ইসলাম, সেখ মুজিবুর রহমান, তৈয়বুর রহমান, বদিউজ্জামান চৌধুরী, ডা. মো. শাহাদাৎ হোসেন, আমিনুল হক টুকু, নজরুল ইসলাম প্রমুখ।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা