kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ২১ নভেম্বর ২০১৯। ৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ২৩ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

সংবাদ সম্মেলনে বিআইপি

ঢাকার দুই সিটির বাজেট অংশগ্রহণমূলক নয়

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



ঢাকার দুই সিটি করপোরেশনের চলতি অর্থবছরের (২০১৯-২০) বাজেট জনপ্রতিনিধিত্ব ও অংশগ্রহণমূলক নয় বলে মনে করছে বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব প্ল্যানার্স (বিআইপি)। বাজেটে খাতভিত্তিক বরাদ্দ থাকলেও ওয়ার্ডভিত্তিক কোনো বরাদ্দ না থাকায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছে নগর পরিকল্পনাবিদদের সংগঠনটি। গতকাল শনিবার বিকেল ৩টায় রাজধানীর বাংলামোটরে বিআইপি কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে সংগঠনটির নেতারা ঢাকার দুই সিটির বাজেট নিয়ে তাঁদের বক্তব্য তুলে ধরেন।

সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, গত ১ সেপ্টেম্বর চলতি অর্থবছরের জন্য তিন হাজার ৬৩১ কোটি টাকার বাজেট ঘোষণা করেছে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি)। এ ছাড়া গত ৫ সেপ্টেম্বর তিন হাজার ৫৭ কোটি ২৪ লাখ টাকার বাজেট দিয়েছে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন (ডিএনসিসি)। দুই সিটি করপোরেশনের বাজেটে খাতভিত্তিক অর্থ বরাদ্দ রাখা হয়েছে। কিন্তু উন্নত দেশগুলোতে নগরের বাজেটে খাতভিত্তিক বরাদ্দের চেয়ে ওয়ার্ড বা অঞ্চলভিত্তিক বরাদ্দ দেওয়া হয়। বাজেটে ওয়ার্ডভিত্তিক বরাদ্দ থাকলে উন্নয়ন সুষম হয়। এ ছাড়া প্রতিটি দেশের শহরগুলোকে ঢেলে সাজানোর জন্য দীর্ঘমেয়াদি পরিকল্পনা থাকে। বাজেটে অর্থ বরাদ্দ দেওয়ার জন্য দীর্ঘমেয়াদি পরিকল্পনাকে গুরুত্ব দেওয়া হয়। কিন্তু রাজধানীর দুই সিটি করপোরেশনের বাজেট বরাদ্দে দীর্ঘমেয়াদি পরিকল্পনার কোনো প্রতিফলন ঘটেনি। একই সঙ্গে বাজেটে স্থানীয় প্রতিনিধি ও জনগণের অংশগ্রহণ নিশ্চিত করা উচিত প্রতিটি সংস্থার। কিন্তু রাজধানীর দুই সিটি করপোরেশনের বাজেটে তা নিশ্চিত করা হয়নি।

বিআইপির নেতারা মনে করেন, দুই সিটি করপোরেশনের ঘোষিত বাজেটে আয়ের ক্ষেত্রগুলো সবার জানা থাকলেও ব্যয়ের বিষয়ে স্বচ্ছ ধারণা দেওয়া হয়নি। একই সঙ্গে ঘোষিত বাজেট উন্নয়নের তুলনায় অপর্যাপ্ত বলেও মনে করেন তাঁরা। এ ছাড়া বিগত বাজেটে সরকারি ও বিদেশি সংস্থা থেকে বিপুল পরিমাণ অর্থের প্রত্যাশা করা হলেও তা আসেনি। ফলে প্রত্যাশিত উন্নয়ন বাধাগ্রস্ত হয়েছে। চলতি অর্থবছরেও দুই সিটি করপোরেশন বাজেটে বড় অর্থ প্রত্যাশা করা হয়েছে একই উৎস থেকে।

বিআইপি সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ড. আদিল মুহাম্মদ খান বলেন, ‘বাজেট অনুষ্ঠানে জবাবদিহি থাকতে হবে, যেটা পৌরসভাগুলোতে দেখা যায়। সেখানে একটি বাজেট প্রস্তাবের আগে বহুবার আলোচনা হয়, সবার অংশগ্রহণ থাকে। কিন্তু ঢাকার দুই সিটি করপোরেশনের বাজেটে তা অনুপস্থিত।’

উল্লেখ্য, গত ১ সেপ্টেম্বর ঢাকা দক্ষিণ সিটির বাজেট-পরবর্তী সংবাদ সম্মেলনে এক সাংবাদিকের সঙ্গে কাউন্সিলরদের অসৌজন্যমূলক আচরণের নিন্দা ও উদ্বেগ জানিয়েছেন বিআইপি নেতারা।

সংবাদ সম্মেলনে বিআইপির সহসভাপতি অধ্যাপক ড. আকতার মাহমুদ, সংগঠনটির সাবেক সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ড. গোলাম মর্তুজা প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা