kalerkantho

শুক্রবার । ২২ নভেম্বর ২০১৯। ৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ২৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

কিশোরগঞ্জে এমপি চুন্নুকে অবাঞ্ছিত ঘোষণা

কিশোরগঞ্জ প্রতিনিধি   

৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



কিশোরগঞ্জে এমপি চুন্নুকে অবাঞ্ছিত ঘোষণা

কিশোরগঞ্জ শহরে গতকাল দুপুর ১২টার দিকে বিক্ষোভ ও ঝাড়ু মিছিল করে নেতাকর্মীরা। ছবি : কালের কণ্ঠ

গঠনতন্ত্রবহির্ভূত ও অবৈধভাবে রওশন এরশাদকে জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান ঘোষণা করার প্রতিবাদে কিশোরগঞ্জে বিক্ষোভ ও ঝাড়ু মিছিল করেছে নেতাকর্মীরা। গতকাল শনিবার দুপুরে জেলা জাতীয় পার্টির নেতাকর্মীরা এ বিক্ষোভ করে।

রওশন এরশাদকে চেয়ারম্যান ঘোষণা করার ‘ষড়ষন্ত্রে’ জেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি করিমগঞ্জ-তাড়াইল আসনের সংসদ সদস্য (এমপি) সক্রিয়ভাবে জড়িত থাকায় তাঁকে কিশোরগঞ্জে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করা হয়। একই সঙ্গে এ সংসদ সদস্যকে দল থেকে বহিষ্কারের দাবি জানানো হয়। গতকাল দুপুর ১২টার দিকে শহরের শোলাকিয়ায় জাতীয় পার্টির কার্যালয় থেকে একটি বিক্ষোভ মিছিল বের হয়ে বিভিন্ন সড়ক ঘুরে ইসলামিয়া সুপার মার্কেটে গিয়ে শেষ হয়। এ সময় বিক্ষোভকারীদের হাতে ঝাড়ু দেখা যায়। বিক্ষোভ শেষে নেতাকর্মীরা স্থানীয় সংসদ সদস্য মুজিবুল হক চুন্নুর ছবিতে আগুন ধরিয়ে দেয়। এর আগে দলীয় কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত এক সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য দেন জেলা জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট আশরাফ উদ্দিন রেণু।

সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, জাতীয় পার্টির প্রয়াত চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ মৃত্যুর আগে জি এম কাদেরকে দলের চেয়ারম্যান নিযুক্ত করে যান। তাঁর নেতৃত্বেই দলের কাজ চলছিল। এ অবস্থায় জাতীয় পার্টিকে ধ্বংস করার এজেন্ডা বাস্তবায়ন করতে ব্যারিস্টার আনিসুল ইসলাম মাহমুদের বাসায় চুন্নুসহ কয়েকজন সুবিধাবাদী এমপি বৈঠক করে রওশন এরশাদকে অবৈধভাবে চেয়ারম্যান ঘোষণা করেন, যা দলসহ দলের বিভিন্ন অঙ্গসংগঠনে তীব্র প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি করে। সংবাদ সম্মেলনে ব্যারিস্টার আনিসুল ইসলাম মাহমুদ, মুজিবুল হক চুন্নু, ফকরুল ইমাম, এস এম ফয়সল চিশতি, মীর আবদুস সবুরসহ সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের দলবিরোধী কর্মকাণ্ডে জড়িত থাকায় বহিষ্কারের দাবি জানানো হয়। নেতাকর্মীরা অভিযোগ করে, বারবার এই চক্র দলকে বিপথে নিয়েছে। কাজেই তাদের দল থেকে বের করে দেওয়াই সময়ের দাবি।

সংবাদ সম্মেলনে জেলা জাতীয় পার্টির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আবদুল গণি মিয়া, সাংগঠনিক সম্পাদক মো. মুজিবুর রহমান, শেখ মুহাম্মদ আবু ওয়াহাব, অ্যাডভোকেট সেলিম উদ্দিন, আবুল হাশেম, জাতীয় স্বেচ্ছাসেবক পার্টির সভাপতি হাবিবুল ইসলাম বাচ্চু, জাতীয় যুব সংহতির সহসভাপতি সাইফুর রহমান ইমন, আশরাফুল ইসলাম সোহাগ, এ কে এম আরিফুর রহমান বাবু, মকবুল হোসেন বকুল, শাকিল আহমেদ, মো. হাফিজ উদ্দিনসহ দলের বিপুলসংখ্যক নেতাকর্মী উপস্থিত ছিল।

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা