kalerkantho

মঙ্গলবার । ১২ নভেম্বর ২০১৯। ২৭ কার্তিক ১৪২৬। ১৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী জানালেন

রাজাকারের তালিকা মার্চের মধ্যে

ব্রাহ্মণবাড়িয়া ও কালিয়াকৈর প্রতিনিধি   

৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক জানিয়েছেন, আগামী মার্চের মধ্যে রাজাকারের তালিকা প্রণয়ন করা হবে। আগামী জাতীয় সংসদে এ নিয়ে আলোচনা হবে।

ভারতের ত্রিপুরার একটি অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে গতকাল শনিবার সকালে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়া স্থলবন্দর দিয়ে বাংলাদেশে ফেরার পথে মন্ত্রী এ তথ্য জানান। গত শুক্রবার বিকেলে তিনি ত্রিপুরায় গিয়েছিলেন। ফেরার পথে তাঁকে স্বাগত জানান আখাউড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) তাহমিনা আক্তার রেইনা, সহকারী পুলিশ সুপার (কসবা সার্কেল) মো. আব্দুল করিম প্রমুখ।

বাংলাদেশের মহান মুক্তিযুদ্ধে ত্রিপুরাবাসীর অবদানের কথা তুলে ধরে মন্ত্রী মোজাম্মেল হক বলেন, ‘মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি সংরক্ষণের ব্যাপারে ভারতের সঙ্গে আলোচনা হয়েছে। এটি বাস্তবায়নের লক্ষ্যে দুই দেশ কাজ করছে। মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি সংরক্ষণ করতে পারলে ভবিষ্যৎ প্রজন্ম মুক্তিযুদ্ধ সম্পর্কে জানতে পারবে।’

তিনি আরো বলেন, মিয়ানমার থেকে বাংলাদেশে আসা রোহিঙ্গা নাগরিকদের তাদের নিজ দেশে ফেরত পাঠানোর ব্যাপারে ভারত বাংলাদেশকে সর্বোচ্চ সহযোগিতা করবে।

এদিকে আগামী বছরের মধ্যে ত্রিপুরায় থাকা মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিবিজড়িত স্থানগুলোতে স্মৃতিফলক নির্মাণ করা হবে বলে জানিয়েছেন মুক্তিযুদ্ধ একাডেমি ট্রাস্টের সভাপতি ড. আবুল কালাম আজাদ। ত্রিপুরার রাজধানী আগরতলার মুক্তধারা প্রেক্ষাগৃহে সৌহার্দ্য বিনিময় অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা জানান। বাংলাদেশের ৫০ বছর পূর্তি ও জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে আগরতলার বাংলাদেশ হাইকমিশন এবং ত্রিপুরার তথ্য ও সাংস্কৃতিক দপ্তর শুক্রবার বিকেলে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী ওই অনুষ্ঠানে যোগ দেন। এ ছাড়া মুক্তিযোদ্ধা ও তাঁদের পরিবারের ৩৫ সদস্যের একটি দল ওই অনুষ্ঠানে যোগদানসহ স্মৃতিবিজড়িত বিভিন্ন স্থান ঘুরে দেখেন।

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা