kalerkantho

মঙ্গলবার । ১২ নভেম্বর ২০১৯। ২৭ কার্তিক ১৪২৬। ১৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

ডিএনসিসির নতুন বাজেট

মশক নিয়ন্ত্রণে বরাদ্দ বাড়ল ১৮২%

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



মশক নিয়ন্ত্রণে বরাদ্দ বাড়ল ১৮২%

সাতরাস্তা-মগবাজার ফ্লাইওভারের নিচে আবর্জনা ও চৌবাচ্চায় পানি জমে থাকায় মশার বংশবিস্তার হচ্ছে। ছবিটি মগবাজার মোড় থেকে তোলা। ছবি : কালের কণ্ঠ

২০১৯-২০ অর্থবছরের জন্য তিন হাজার ৫৭ কোটি ২৪ লাখ টাকার বাজেট ঘোষণা করেছে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন (ডিএনসিসি)। গতকাল বৃহস্পতিবার ডিএনসিসি ঘোষিত বাজেটে মশক নিয়ন্ত্রণে বরাদ্দ গত অর্থবছরের তুলনায় ১৮২ শতাংশ বেশি রাখা হয়েছে। মশক নিয়ন্ত্রণ খাতে গত বছরের ডিএনসিসির বরাদ্দ ছিল ১৭ কোটি ৫০ লাখ টাকা। এবার তা বাড়িয়ে ৪৯ কোটি ৩০ লাখ টাকা করা হয়েছে।

বাজেটের তথ্য মতে, মশক নিয়ন্ত্রণ খাতে বরাদ্দ থেকে মশার ওষুধ কেনা বাবদ রাখা হয়েছে ৩০ কোটি টাকা। কচুরিপানা ও আগাছা পরিষ্কার করার জন্য রাখা হয়েছে আড়াই কোটি টাকা। মশার ওষুধ ছিটানোর যন্ত্রপাতি কিনতে রাখা হয়েছে তিন কোটি ৮০ লাখ টাকা। এ ছাড়া মশক নিয়ন্ত্রণ কার্যক্রমে জনগণকে সম্পৃক্ত করতে ব্যয় করা হবে এক কোটি টাকা। করপোরেশনের বাইরের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান ও জনবলের মাধ্যমে মশক কার্যক্রম পরিচালনা করতে ১২ কোটি টাকা ব্যয় করবে ডিএনসিসি।

বাজেট বিশ্লেষণে দেখা গেছে, ডিএনসিসির বাজেটের অর্থের বড় অংশের জোগান প্রত্যাশা করা হয়েছে সরকারি ও বৈদেশিক সাহায্যপুষ্ট প্রকল্প খাত থেকে। এই খাত থেকে এক হাজার ৫৬৪ কোটি ৬৪ লাখ টাকা প্রত্যাশা করছে সংস্থাটি। গত বছর এই খাত থেকে ডিএনসিসি পেয়েছে ৭০৪ কোটি ১০ লাখ টাকা। ডিএনসিসির আওতাধীন এলাকার বর্জ্য ব্যবস্থাপনার জন্য রাখা হয়েছে ৮৬ কোটি টাকা। সড়ক ও ট্রাফিক অবকাঠামো রক্ষণাবেক্ষণ ও উন্নয়ন খাতে বরাদ্দ রাখা হয়েছে ৩৬৩ কোটি টাকা। ডিএনসিসির ভৌত অবকাঠামো নির্মাণ ও রক্ষণাবেক্ষণের জন্য রাখা হয়েছে ৭৬ কোটি ৭৫ লাখ টাকা। পরিবেশ উন্নয়ন খাতে বরাদ্দ বাড়িয়েছে ডিএনসিসি।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা