kalerkantho

শুক্রবার । ১৫ নভেম্বর ২০১৯। ৩০ কার্তিক ১৪২৬। ১৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

প্রধানমন্ত্রীকে অস্ট্রেলিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী

রোহিঙ্গা ইস্যুতে বাংলাদেশের পাশে থাকবে অস্ট্রেলিয়া

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সফররত অস্ট্রেলীয় পররাষ্ট্রমন্ত্রী মেরিজ পেইন বলেছেন, তাঁর দেশ রোহিঙ্গা ইস্যুতে বাংলাদেশের প্রতি জোরালো সমর্থন অব্যাহত রাখবে। গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে রাজধানীর হোটেল ইন্টারকন্টিনেন্টালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে সাক্ষাতে এ আশ্বাস দেন মেরিজ পেইন।

ঢাকায় আইওআএর ব্লু ইকোনমি বিষয়ক মন্ত্রী পর্যায়ের সম্মেলন উপলক্ষে মেরিজ পেইন ঢাকায় এসেছেন। বৈঠক শেষে প্রধানমন্ত্রীর প্রেসসচিব ইহসানুল করিম সাংবাদিকদের ব্রিফ করেন। প্রেসসচিব বলেন, “অস্ট্রেলিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেছেন, ‘আমরা চাই জোরপূর্বক বাস্তুচ্যুত রোহিঙ্গা নাগরিকরা তাদের নিজ দেশে ফিরে যাক।’”

মেরিজ পেইন প্রায় ১১ লাখ বাস্তুচ্যুত রোহিঙ্গাকে বাংলাদেশে আশ্রয় দেওয়ায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভূয়সী প্রশংসা করেন। অস্ট্রেলিয়া মানবিক দিক বিবেচনায় আগামীতে আরো সহযোগিতা করবে উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘আমরা এই ইস্যুটির সংস্পর্শে থাকতে চাই।’

এ প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ মানবিক কারণে এসব জোরপূর্বক বাস্তুচ্যুত রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দিয়েছে। তিনি আরো বলেন, ‘আমরা মিয়ানমারের সঙ্গে সংলাপ করেছি এবং রোহিঙ্গা শরণার্থীদের প্রত্যাবাসনের বিষয়ে একটি চুক্তিতে উপনীত হয়েছি, কিন্তু চুক্তির বাস্তবায়ন হয়নি।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘রোহিঙ্গারা মিয়ানমারের নাগরিক এবং তাদের অবশ্যই ফিরিয়ে নিতে হবে।’ তিনি বলেন, ‘এটি আমাদের জন্য একটি বড় বোঝা। এরই মধ্যে কক্সবাজারের রোহিঙ্গা শরণার্থী শিবিরে প্রায় এক লাখ শিশু জন্মলাভ করেছে।’

ক্রিকেট প্রসঙ্গে কথা হলে মেরিজ পেইন, যিনি কিনা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার মতোই এই জনপ্রিয় খেলার একজন ভক্ত, তিনি বলেন, তাঁরা চান অস্ট্রেলীয় জাতীয় ক্রিকেট দল আগামী বছর বাংলাদেশ সফর করুক।

এর আগে সম্মেলনে যোগদানে আগত বিভিন্ন দেশের প্রতিনিধিদলের প্রধানরা একই হোটেলে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন। তাঁদের প্রধানমন্ত্রী স্বাগত জানান বলে প্রেসসচিব উল্লেখ করেন।

কনফারেন্স উপলক্ষে আসা প্রতিনিধিদলের প্রধানরা বাংলাদেশের আতিথেয়তার ভূয়সী প্রশংসা করেন এবং বলেন, সব অংশগ্রহণকারী দেশই এই সম্মেলনের প্রতি সর্বাধিক গুরুত্ব আরোপ করেছে। সম্মেলনের মূল অধিবেশনে একটি প্রাণবন্ত আলোচনা অনুষ্ঠিত হয় এবং তাঁরা বলেন, তাঁরা এই সম্মেলনের ঢাকা ঘোষণাকে সমর্থন করবেন। সূত্র : বাসস।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা