kalerkantho

বুধবার । ২০ নভেম্বর ২০১৯। ৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ২২ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

২০০ ফগার মেশিন কেনার প্রস্তাব অনুমোদন

মশা মারা শিখতে সিঙ্গাপুর যাবেন নগর কর্মকর্তারা

মশা মারার কার্যক্রম চলবে বছরজুড়ে

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ডেঙ্গু ও চিকুনগুনিয়া প্রতিরোধে ২০০ ফগার মেশিন, ১৫০টি হাতে পরিচালিত মেশিন এবং ৪০ হাজার লিটার ম্যালাথিয়ান কীটনাশক কেনার প্রস্তাব অনুমোদন দিয়েছে সরকারি অর্থনৈতিক বিষয়সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটি। ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের জন্য আগামী এক মাসের মধ্যে এসব সরঞ্জাম কেনা হবে। এতে ব্যয় ধরা হয়েছে পাঁচ কোটি ৩২ লাখ ৫৫ হাজার টাকা। গতকাল বুধবার সচিবালয়ে অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামালের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত বৈঠকে এসব প্রস্তাবের অনুমোদন করা হয়। 

বৈঠক শেষে অর্থমন্ত্রী বলেন, ফগার মেশিন ও ম্যালাথিয়ান (ব্যবহারের জন্য তৈরি) নামক কীটনাশক সরাসরি ক্রয় করা হবে। আগামী এক মাসের মধ্যে এসব যন্ত্রপাতি ও কীটনাশক দেশে আসবে। এসব ক্রয়ের জন্য টেন্ডার করলে অনেক সময় লাগবে। জাতির কথা বিবেচনা করে এ ক্রয়ের অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।

মশাকে আকৃষ্ট করে মারা শিখতে কর্মকর্তারা সিঙ্গাপুর যাবেন উল্লেখ করে অর্থমন্ত্রী আরো বলেন, সিটি করপোরেশনের কর্মকর্তারা কয়েকটি দেশ সফর করেছেন। তাঁরা পরবর্তী সময়ে সিঙ্গাপুর যাবেন। সিঙ্গাপুরের একটি প্রকল্প আছে, মশাকে অ্যাট্রাক্ট (আকৃষ্ট) করে তারা একত্রে মারে। তারা গর্ত করে সব মশা আকৃষ্ট করে সেখানে আনে। তখন সব মশা একসঙ্গে মারা হয়। আমাদের আগে মশা তাড়ানো হতো, তাই লাভ বেশি হয়নি। আমরা দেখছি মোটামুটি পরিবর্তন আসছে।’

অর্থমন্ত্রী বলেন, এবারের ডেঙ্গু স্মরণকালের ভয়াবহতা দেখিয়েছে। ডেঙ্গু ও চিকুনগুনিয়া রোগের বিষয়টি জাতীয়ভাবে গুরুত্ব দিয়ে দেখছে সরকার। শুরুর দিকে সেবাদান প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে সমন্বয় না থাকলেও ডেঙ্গু প্রতিরোধে বর্তমানে সংশ্লিষ্ট সব প্রতিষ্ঠান সমন্বিতভাবে কাজ করছে। দেশের জন্য দুশ্চিন্তার কারণ ডেঙ্গু ও চিকুনগুনিয়া। দেশের মানুষকে রক্ষা এবং কষ্ট থেকে মুক্তি দিতে এখন সিটি করপোরেশনের লোকজন ঘরে ঘরে যাচ্ছে।

অর্থমন্ত্রী বলেন, দক্ষিণ সিটি থেকে ক্রয়সংক্রান্ত কোনো প্রস্তাব পাইনি। উত্তর সিটি যেহেতু কিনছে, দক্ষিণও হয়তো কিনবে। মশা মারার এ কার্যক্রম সারা বছর চলবে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা