kalerkantho

সোমবার । ১৮ নভেম্বর ২০১৯। ৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ২০ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

আলোচনাসভায় ফখরুল

রোহিঙ্গার মতো আরো বিপদ আসছে

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, ‘দেশে আজ গণতন্ত্র নেই। মানুষ ন্যায়বিচার পায় না, সামাজিক বিচার পায় না। তারা অসহায় হয়ে গেছে। রোহিঙ্গাদের ফেরত পাঠানোর জন্য কোনো ব্যবস্থা নিতে পারেনি সরকার। কারণ তাদের প্রধান মিত্র ভারত ও চীন মিয়ানমারের পক্ষে। শুধু রোহিঙ্গা সমস্যা নয়, আরো বিপদ আসছে। চোখ বন্ধ করে থাকলে চলবে না। মাথা নিচু করে দিলে হবে না। চারদিক থেকেই বিপদ আসছে।’

বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের ১২তম কারামুক্তি দিবস উপলক্ষে গতকাল বুধবার জাতীয় প্রেস ক্লাবে আয়োজিত আলোচনাসভায় মির্জা ফখরুল এসব কথা বলেন। ভারতের আসামে এনআরসি তৈরির উল্লেখ করে ফখরুল বলেন, ‘এর মধ্যে কী আছে না আছে আমরা জানি না। তবে এটুকু বুঝি যে একটা বিপদ জানান দিচ্ছে। বাংলাদেশের মানুষকে সজাগ হতে হবে। দেশের মানুষকেই তার স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্ব রক্ষা করতে হবে। সে ক্ষেত্রে বিএনপি, ছাত্রদল, যুবদল, শ্রমিক দল ও স্বেচ্ছাসেবক দলকে সেই আন্দোলনে নেতৃত্ব দেওয়ার দায়িত্ব নিতে হবে।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘নেলসন ম্যান্ডেলা ২৭ বছর জেল খেটে তারপর দক্ষিণ আফ্রিকা স্বাধীন করেছেন। এই মিয়ানমারের সু চি ১০ বছর গৃহবন্দি ছিলেন। এরপর তাঁর দল আবার ক্ষমতায় গেছে। এর আগে ৯ বছর স্বৈরাচারের বিরুদ্ধে লড়াই করার পর বিজয় এসেছে। ভবিষ্যতে দেশনেত্রী ও গণতন্ত্রকে মুক্ত করব এবং তারেক রহমানকে দেশে ফিরিয়ে আনব—এটাই আমাদের একমাত্র লক্ষ্য।’

ফখরুল বলেন, আজকের প্রধানমন্ত্রী ২০০১ সালের নির্বাচনের পর বলেছিলেন, তিনি গ্যাস রপ্তানির চুক্তিতে সই করেননি বলে পরাজিত হয়েছেন। গতকাল কিন্তু সেই গ্যাস রপ্তানির চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছে। শুধু ক্ষমতায় টিকে থাকতে দেশের সব স্বার্থ জলাঞ্জলি দেওয়া হচ্ছে।

আয়োজক সংগঠন উত্তরাঞ্চল ছাত্র ফোরামের সভাপতি আমিরুল ইসলাম খান আলিমের সভাপতিত্বে আলোচনাসভায় বিএনপি নেতা ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু, শামসুর রহমান শিমুল বিশ্বাস, হাবিব উন নবী খান সোহেল প্রমুখ বক্তব্য দেন। এ ছাড়া বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলুসহ উত্তরাঞ্চল বিএনপি, যুবদল, স্বেচ্ছাসেবক দল ও ছাত্রদলের নেতারা অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা