kalerkantho

সোমবার । ১৮ নভেম্বর ২০১৯। ৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ২০ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

জবিতে খালেদা জিয়ার নামফলক ভাঙল ছাত্রলীগকর্মীরা

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি    

৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



রাতের আঁধারে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে (জবি) বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দলের (বিএনপি) চেয়ারপারসন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়ার নামসংবলিত ফলকটি ভিত্তিপ্রস্তর থেকে ভেঙে ফেলেছে বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের কয়েকজন কর্মী। জানা গেছে, গত সোমবার রাতে ছাত্রলীগের কয়েকজন কর্মী প্রশাসন ভবনের সামনে থাকা বিশ্ববিদ্যালয় ঘোষণার ওই নামফলকটি ভেঙে দেয়।

এর আগে ২০১৭ সালে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিত্তিপ্রস্তর থেকে সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়ার নাম বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন মুছে দিলে ক্যাম্পাসে ছাত্রদলের আন্দোলনের মুখে তা আবার পুনঃস্থাপন করা হয়।

জবি ছাত্রদলের সভাপতি রফিকুল ইসলাম বলেন, ‘বেগম খালেদা জিয়া জগন্নাথ কলেজকে বিশ্ববিদ্যালয়ে রূপান্তর করেছেন। এ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে খালেদা জিয়ার নামফলক মুছে ফেলা যাবে না। এর আগেও দুষ্কৃতকারীরা নামফলকটি ভাঙচুর করেছিল, কিন্তু ছাত্রদলের আন্দোলনে তা পুনঃস্থাপন করা হয়। এবারও যদি নামফলকটি শিগগিরই পুনঃস্থাপন না করা হয় তাহলে ছাত্রদল আন্দোলনের মাধ্যমে তা পুনঃস্থাপনে বাধ্য করা হবে।’

জবি শাখা ছাত্রলীগের সদ্য সাবেক সভাপতি তরিকুল ইসলামকে এ বিষয়ে প্রশ্ন করলে তিনি বলেন, ‘নিয়মানুযায়ী যিনি ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন তাঁর নাম থাকা উচিত। খালেদা জিয়া এই বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেছেন তাঁর মানে এই নয় যে বিশ্ববিদ্যালয়টি তাঁর। এ ধরনের কর্মকাণ্ড অপরাজনীতির পরিচায়ক।’    

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ড. মোস্তফা কামাল জানান, একটি তদন্ত কমিটি করা হবে। তদন্তসাপেক্ষে যে বা যারা নামফলকটি ভাঙল তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এ ছাড়া দ্রুতই নামফলকটি পুনঃস্থাপনের ব্যবস্থা করা হবে বলে তিনি জানান। ১৯৯৫ সালের ২ নভেম্বর খালেদা জিয়া প্রধানমন্ত্রী থাকাবস্থায় জগন্নাথ কলেজকে বিশ্ববিদ্যালয়ে রূপান্তরের ঘোষণা দিয়ে ক্যাম্পাসের প্রশাসনিক ভবনের সামনে বিশ্ববিদ্যালয় ঘোষণার ফলক উন্মোচন করেন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা