kalerkantho

শুক্রবার । ১৫ নভেম্বর ২০১৯। ৩০ কার্তিক ১৪২৬। ১৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

সিনিয়র-জুনিয়র দ্বন্দ্ব

গাজীপুরে প্রকাশ্যে কুপিয়ে হত্যা কিশোরকে

নিজস্ব প্রতিবেদক, গাজীপুর   

৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



গাজীপুরে প্রকাশ্যে এক কিশোরকে কুপিয়ে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। গতকাল মঙ্গলবার বিকেলে শহরের রাজদীঘির উত্তর পারে এ ঘটনাটি ঘটে। নিহত নূরুল ইসলাম (১৪) শেরপুর জেলার শ্রীবর্দী থানার ভায়াডাঙ্গা (ভাগাতা) গ্রামের ফকির আলীর ছেলে। ফকির আলী গাজীপুর শহরের টাংকিরপাড় এলাকার ফরিদ মিয়ার বাড়ির ভাড়াটে। তিনি পাখি ধরে বিক্রি করেন।

এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য সাজন (১৬) নামের এক কিশোরকে আটক করেছে গাজীপুর সদর থানার পুলিশ।

সাজনের বড় ভাই রাজনের ভাষ্য, ‘গতকাল সোমবার দীঘিরপাড়ে ধূমপান করার সময় রানা নামের এক কিশোরকে ধমকায় সাজন। তখন নূরুলও সাজনের সঙ্গে ছিল। এরপর তাদের মধ্যে বাগিবতণ্ডা হলে রানা দেখে নেওয়ার হুমকি দিয়ে চলে যায়।’ এই দ্বন্দ্বেই রানা সঙ্গীদের নিয়ে নূরুলকে হত্যা করেছে বলে সাজন জানিয়েছে। প্রতিবেশীরা জানায়, গতকাল দুপুরের খাবার খেয়ে সাজন ও নূরুল দুজনে সাজনদের বাড়ির সামনের রাজদীঘির পারে বসে ছিল। এর কিছুক্ষণের মধ্যে চার-পাঁচ কিশোর চাপাতি হাতে তাদের লক্ষ্য করে এগিয়ে আসতে থাকে। হামলা হতে পারে আশঙ্কায় সাজন দৌড়ে পাশের বাড়ির একটি ঘরে ঢুকে দরজা বন্ধ করে দেয়। নূরুল পালাতে না পেরে দীঘির পানিতে ঝাঁপ দেয়। ঘাতকরা পানি থেকে পারে তুলে নূরুলকে চাপাতি দিয়ে পিঠে একটি কোপ দেয়। প্রচুর রক্তক্ষরণে সে অচেতন হয়ে পড়ে। এরপর হামলাকারী কিশোররা সাজনকে আক্রমণ করতে যায়। সাজন যে ঘরে দরজা বন্ধ করে লুকিয়ে ছিল সেই ঘরের দরজা-জানালায় কোপ ও লাথি মারতে থাকে হামলাকারী কিশোররা। এরপর স্থানীয় লোকজন ঘটনাস্থলে উপস্থিত হলে তারা পালিয়ে যায়। পরে নূরুলকে উদ্ধার করে শহীদ তাজউদ্দীন মেডিক্যালে নিলে দায়িত্বরত চিকিৎসকরা তাকে মৃত বলে ঘোষণা করেন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা