kalerkantho

শুক্রবার । ১৫ নভেম্বর ২০১৯। ৩০ কার্তিক ১৪২৬। ১৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

গাজীপুরে সন্ত্রাসী হামলায় আওয়ামী লীগ নেতাসহ পাঁচজন আহত

নিজস্ব প্রতিবেদক, গাজীপুর   

৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



গাজীপুরে সন্ত্রাসী হামলায় আওয়ামী লীগ ও ছাত্রলীগের দুই নেতাসহ পাঁচজন আহত হয়েছেন। সন্ত্রাসীদের দা ও চাপাতির কোপে আহত পাঁচজনকে গাজীপুরের শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। গত রবিবার রাতে গাজীপুর মহানগরের গাছা থানার শরীফপুরের হারিকেন সড়কে এ হামলার ঘটনা ঘটে। পূর্বশত্রুতার জের ধরে যুবলীগ নেতা শহীদ মণ্ডলের নেতৃত্বে এ হামলা হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

আহতরা হলেন গাছা থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি পদপ্রার্থী মো. রুস্তম আলী (৫০), গাছা থানা ছাত্রলীগের যুগ্ম সম্পাদক সোলায়মান হোসেন বাবু (২২) এবং তাঁর তিন বন্ধু সুজন (২৩), পারভেজ (২১) ও মোহাম্মদ আলী (২২)। তাঁদের মধ্যে বাবু ও রুস্তমের জখম গুরুতর। এ ঘটনায় সোলায়মান বাবুর বাবা মো. ইউনুস আলী মণ্ডল বাদী হয়ে গতকাল সোমবার শহীদ মণ্ডলসহ ১০ জনের নামে গাছা থানায় মামলা করেছেন।

মামলার বাদী ইউনুস আলী মণ্ডল অভিযোগ করেন, শহীদ মণ্ডলের বিরুদ্ধে জমি ও বাড়ি দখল, মাদক কারবার ও সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের অভিযোগে একাধিক মামলা রয়েছে। দুই ভাগ্নেকে নিয়ে তিনি এলাকায় গড়ে তুলেছেন সন্ত্রাসী বাহিনী। আওয়ামী লীগ নেতা রুস্তম আলী ও তাঁর ছেলে সোলায়মান বাবু তাদের এসব কাজে প্রতিবাদ করে আসছিলেন। এ নিয়ে শহীদ মণ্ডলের সঙ্গে বিরোধ চলছিল। রবিবার সন্ধ্যার পর বিদ্যুৎ চলে গেলে গরমে অতিষ্ট হয়ে বন্ধুদের নিয়ে হারিকেন সড়কে বের হন সোলায়মান বাবু।

ইউনুসের অভিযোগ, সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে ওই সড়কের বিএসএমএল গার্মেন্টের সামনে পৌঁছলে শহীদ মণ্ডলের নেতৃত্বে আমিনুল ইসলাম, তাঁর দুই ভাগ্নে রাহাত-রাসেলসহ ১০ সন্ত্রাসী রামদা, চাপাতি, ছোরা, হকিস্টিক, রড, লাঠিসোঁটাসহ তাঁদের ওপর অতর্কিত হামলা চালায়। দায়ের কোপে বাবুর মাথা ও পিঠ কেটে গভীর ক্ষত হয়েছে। বাবু ও তাঁর বন্ধুদের চিৎকারে রুস্তম আলী রক্ষা করতে গেলে তাঁকেও কুপিয়ে ও পিটিয়ে গুরুতর আহত করা হয়। একপর্যায়ে পথচারী ও আশপাশের লোকজন ছুটে এলে সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায়। পরে তাঁদের উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। গাছা থানার ওসি মো. ইসমাইল হোসেন জানান, গত ৩০ আগস্ট গাছা থানা আওয়ামী লীগের জাতীয় শোক দিবসের অনুষ্ঠানে মিছিলে লোকসমাগম কমবেশি নিয়ে দুই পক্ষের মধ্যে তর্ক বাধে। এর জেরে রবিবার রাতে হামলার ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় মামলা হয়েছে। তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা