kalerkantho

বুধবার । ১৩ নভেম্বর ২০১৯। ২৮ কার্তিক ১৪২৬। ১৫ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

আটলান্টায় অনুষ্ঠিত হলো বিশ্ব বাংলা সাহিত্য সমাবেশ

শামীম আল আমিন, জর্জিয়ার আটলান্টা থেকে   

৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বিশ্বজুড়ে ছড়িয়ে থাকা বাংলা ভাষার অনাবাসী কবি-সাহিত্যিকদের দুই দিনের অসাধারণ এক মিলনমেলা হয়ে গেল। উত্তর আমেরিকা বাংলা সাহিত্য পরিষদের উদ্যোগে ‘বিশ্ব বাংলা সাহিত্য সমাবেশ’ হয়ে উঠেছিল এক বৈশ্বিক আয়োজন। আমেরিকার বিভিন্ন স্টেট, কানাডা, বাংলাদেশ, ভারতের পশ্চিমবঙ্গসহ বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে কবি-সাহিত্যিকরা সমবেত হয়েছিলেন জর্জিয়ার আটলান্টায়।

‘বাংলায় বিশ্ব, বিশ্বে বাংলা’—এই স্লোগানে গত ৩১ আগস্ট এবং ১ সেপ্টেম্বর এই দুই দিনের বিশ্ব সমাবেশের আহ্বায়ক ছিলেন খ্যাতিমান কথাসাহিত্যিক জ্যোতিপ্রকাশ দত্ত। প্রধান সমন্বয়কারী ছিলেন লেখক সাহাব আহমেদ। সার্বিক তত্ত্বাবধানে ছিলেন কথাসাহিত্যিক ও গবেষক পূরবী বসু। 

সাংবাদিক-লেখক শামীম আল আমিনের সঞ্চালনায় গত শনিবার সকালে বিশ্ব বাংলা সাহিত্য সমাবেশের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানটি হয় বার্কমার হাই স্কুল মিলনায়তনে। অনুষ্ঠানটি শুরু হয় বিশ্ব কবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ‘আগুনের পরশমণি ছোঁয়াও প্রাণে’ সংগীতের মধ্য দিয়ে। বক্তব্য দেন জ্যোতিপ্রকাশ দত্ত ও সাহাব আহমেদ। পরে আয়োজন-সংশ্লিষ্ট সবাইকে পরিচয় করিয়ে  দেওয়া হয়। সমাবেশ উপলক্ষে ‘হৃদবাংলা’ নামে একটি প্রকাশনা প্রকাশ করা হয়।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠান শেষে দিনব্যাপী আয়োজন ছিল কবিতা, গল্প পাঠ, সাহিত্যবিষয়ক সেমিনার ইত্যাদি। এদিন বিকেলে প্রদর্শিত হয় দ্য কনসার্ট ফর বাংলাদেশের ওপর একটি তথ্যচিত্র। সন্ধ্যায় সাংস্কৃতিক পর্বে ছিল যন্ত্রসংগীত, মঞ্চনাটক ও গান। রবিবার ছিল সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক নানা আয়োজন। সকালটি শুরু হয় সাহিত্য আসরের মধ্য দিয়ে। ছিল কয়েকটি সেমিনার। রবীন্দ্রনাথ ও নজরুলের নামে তৈরি দুটি আলাদা মঞ্চে আলোচনায় অংশ নেন বক্তারা। সন্ধ্যায় আটলান্টার স্থানীয় শিল্পীদের পাশাপাশি সংগীত পরিবেশন করেন বিশিষ্ট শিল্পী, অভিনেত্রী ও নির্মাতা মেহের আফরোজ শাওন। সবশেষে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন পূরবী বসু।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা