kalerkantho

সোমবার । ১৮ নভেম্বর ২০১৯। ৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ২০ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

পাথরঘাটার ইমরান এখন ভারতের পুলিশের হাতে

পাথরঘাটা (বরগুনা) প্রতিনিধি   

৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



পাথরঘাটার ইমরান এখন ভারতের পুলিশের হাতে

টানা পাঁচ দিন গভীর সমুদ্রে ভাসার পর অবশেষে জেলে ইমরান হোসেনের (১৪) ঠাঁই হলো ভারতের দক্ষিণ চব্বিশ পরগনা জেলায়। ভারতীয় জলসীমায় অনুপ্রবেশের অপরাধে ওই দেশের জেলেরা তাকে রায়দীঘি থানা পুলিশের কাছে সোপর্দ করেছে। ইমরান বরগুনার পাথরঘাটা উপজেলার চরদুয়ানী ইউনিয়নের মঠেরখাল গ্রামের ইসমাইলের ছেলে।

জানা যায়, গত ২৬ আগস্ট ১২ জন জেলে ইসমাইলের মালিকানাধীন এফবি ইমরান নামের ট্রলারটি নিয়ে সমুদ্রে মাছ শিকার করতে যায়। পরদিন কূলে ফেরার পথে বলেশ্বর নদের মোহনায় ঝড়ের কবলে পড়ে তারা। এতে ইমরান হোসেন ট্রলার থেকে ছিটকে পড়ে। ভাসতে ভাসতে গত শনিবার সে ভারতীয় জলসীমানায় চলে যায়। ভারতীয় ট্রলার এফবি বাবা পঞ্চাননের চালক মনোরঞ্জন দাস সমুদ্রে মাছ ধরার সময় ইমরানকে দেখে উদ্ধার করে। পরে ভারতীয় মৎস্যজীবীরা তাকে দক্ষিণ চব্বিশ পরগনার ডায়মন্ড হারবার মহকুমার রায়দীঘি বন্দরের গ্রামীণ হাসপাতালে ভর্তি করে।

বরগুনা জেলা মৎস্যজীবী ট্রলার মালিক সমিতির সভাপতি গোলাম মোস্তফা চৌধুরী বলেন, ‘নিখোঁজের পর থেকে আমরা বিভিন্নভাবে অনুসন্ধান করেছি। পরে জানতে পেরেছি, ভারতীয় জেলেরা ইমরানকে উদ্ধার করে রায়দীঘি থানায় হস্তান্তর করেছে। তাকে আইনি প্রক্রিয়ায় দেশে ফেরানোর উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।’ তিনি আরো বলেন, গত ২৪ আগস্ট বঙ্গোপসাগরে এফবি খাজা আজমীর ট্রলার থেকে ডাকাতদল কর্তৃক সাগরে নিক্ষিপ্ত নিখোঁজ দুই জেলের মধ্যে নাজিমউদ্দিন মোল্লা ভারতে উদ্ধার হয়েছে। সাগরে ভাসতে দেখে ভারতীয় জেলেরা তাকে রায়দীঘি থানায় পৌঁছে দেয়। আরেক জেলে আবদুল মান্নানের খোঁজ এখনো পাওয়া যায়নি।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা