kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ২১ নভেম্বর ২০১৯। ৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ২৩ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

জমি বন্ধক রেখে ঋণ

ব্যাংকারসহ ছয়জনের জামিন বাতিল প্রশ্নে রুল

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



দুদকের একটি মামলায় মার্কেন্টাইল ব্যাংকের বর্তমান চেয়ারম্যান আকরাম হোসেন হুমায়ুন ও সাবেক চেয়ারম্যান মো. আনোয়ারুল হকসহ ছয় কর্মকর্তাকে নিম্ন আদালতের দেওয়া জামিন কেন বাতিল করা হবে না তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেছেন হাইকোর্ট। দুই সপ্তাহের মধ্যে সংশ্লিষ্টদের রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে।

বিচারপতি ফরিদ আহমেদ ও বিচারপতি এ এস এম আব্দুল মোবিনের হাইকোর্ট বেঞ্চ গতকাল রবিবার এ আদেশ দেন। নিম্ন আদালতের দেওয়া জামিন বাতিল চেয়ে দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) করা আবেদনে এ রুল জারি করেন হাইকোর্ট। আদালতে দুদকের পক্ষে আইনজীবী ছিলেন অ্যাডভোকেট এ কে এম ফজলুল হক।

অন্য যে চারজনের জামিন বাতিল বিষয়ে রুল জারি করা হয়েছে তাঁরা হলেন ব্যাংকটির নির্বাহী কমিটির সদস্য মো. আমান উল্লাহ, সাবেক সদস্য মো. মনসুরুজ্জামান, মো. সেলিম ও সাবেক সদস্য তৌফিকুর রহমান চৌধুরী।

ওই ছয়জন ঢাকার বিশেষ জজ আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিনের আবেদন করেন। আদালত গত ১১ জুন পাঁচজনের এবং ১২ জুন একজনের জামিন মঞ্জুর করেন।

প্যাট্রিক ফ্যাশনস লিমিটেড ২০০০ সালের ২৫ সেপ্টেম্বর মার্কেন্টাইল ব্যাংক থেকে আট কোটি টাকা ঋণ নেয়। তারা ঋণের জামানত হিসেবে গুলশান থানার ভাটারা মৌজার সিএ/এসএ ৭৪০ ও ৭৬২ নম্বর দাগের সাড়ে পাঁচ কাঠা এবং ৩৭৮ ও ৩৭৯ নম্বর দাগের সোয়া সাত কাঠা জমি নিজেদের দাবি করে তা বন্ধক রাখে। ঋণের টাকা ২০০৮ সালের ৩০ জুনের মধ্যে পরিশোধের সময়সীমা নির্ধারিত ছিল। কিন্তু তা না করায় ঋণ বেড়ে সুদাসলে ১০ কোটি ৮৩ লাখ ৪১ হাজার টাকায় দাঁড়ায়। এ টাকা পরিশোধ না করায় ঋণগ্রহীতা প্রতিষ্ঠান ও ঋণ অনুমোদন প্রক্রিয়ায় যুক্ত থাকা ব্যাংক কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে গত ৫ ডিসেম্বর মামলা করে দুদক। মামলায় আসামিদের বিরুদ্ধে পরস্পর যোগসাজশে জমির ভুয়া রেকর্ড সৃষ্টি করে টাকা আত্মসাতের অভিযোগ আনা হয়েছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা