kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ২১ নভেম্বর ২০১৯। ৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ২৩ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

সাপের কামড়ে মৃত্যু, ভুল তথ্যে লাঞ্ছিত ২ পুলিশ

কোটচাঁদপুর (ঝিনাইদহ) প্রতিনিধি    

১ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সাপের কাপড়ে মারা যান এক যুবক। পুলিশের কাছে খবর আসে, কীটনাশক পানে তাঁর মৃত্যু হয়েছে। যথারীতি লাশ আনতে নিহতের বাড়িতে যাওয়া হয়। মরদেহ পাঠানো হবে ময়নাতদন্তের জন্য। এ কথা শুনেই ক্ষুব্ধ হয়ে ওঠে স্থানীয় লোকজন। তাদের হাতে লাঞ্ছিত হতে হয়েছে দুই পুলিশ সদস্যকে। ঘটনাটি ঘটেছে ঝিনাইদহের কোটচাঁদপুর উপজেলার সিঙ্গিয়া গ্রামে।

গ্রামের বাসিন্দা রিপন মণ্ডল বলেন, গতকাল সকালে সিঙ্গিয়া গ্রামের আব্দুল মান্নানের ছেলে মিকাইল (২৮) গরুকে খাওয়ানোর জন্য কলার চারা কাটতে মাঠে যান। এ সময় তাঁকে সাপে কামড় দেয়। মিকাইল বাড়িতে ফিরে আসার পর তাঁর মুখ থেকে ফেনা উঠতে থাকে। এরপর তাঁকে নেওয়া হয় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে। সেখানে সাপের কামড়ের ওষুধ না থাকায় তাঁকে যশোর হাসপাতালে স্থানান্তরের পরামর্শ দেন চিকিৎসক। এরই মধ্যে তাঁর অবস্থার অবনতি হয়। সকাল ১০টায় তিনি মারা যান।

কোটচাঁদপুর থানার পরিদর্শক মাহবুবুল আলম জানান, কীটনাশক পানে সিঙ্গিয়া গ্রামে মিকাইল নামের একজন মারা গেছেন, তাঁকে দাফনের চেষ্টা চলছে—এমন একটি খুদে বার্তা তাঁর মোবাইল ফোনে আসে। বিষয়টি তিনি কোটচাঁদপুর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আতিকুল ইসলামকে জানান। পুলিশ কর্মকর্তা আতিকুল ঘটনাস্থল পরিদর্শন শেষে লাশ ময়নাতদন্তের জন্য ব্যবস্থা নিতে এসআই তপন চন্দ্র দাসকে নির্দেশ দেন। এসআই তপন চন্দ্র দাস ও কনস্টেবল জিনায়েত হোসেন লাশের সুরতহাল করতে গেলে গ্রামবাসী জানতে পারে, মিকাইলের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য ঝিনাইদহ মর্গে পাঠানো হচ্ছে। একপর্যায়ে গ্রামের কিছু যুবক ওই দুই পুলিশ সদস্যকে লাঞ্ছিত করে। পরে অতিরিক্ত পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। পরে সাপের কামড়ে মিকাইলের মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত হয়ে তাঁর লাশ দাফনের অনুমতি দেওয়া হয়।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা