kalerkantho

শুক্রবার । ১৫ নভেম্বর ২০১৯। ৩০ কার্তিক ১৪২৬। ১৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

কুষ্টিয়া পৌরসভা

নিম্নমানের সামগ্রীতে সড়ক সংস্কার!

তারিকুল হক তারিক, কুষ্টিয়া   

১ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



কুষ্টিয়া পৌরসভার ড্রেন নির্মাণ, সড়ক সংস্কার ও সম্প্রসারণ কাজে নিম্নমানের নির্মাণসামগ্রী ব্যবহারের অভিযোগ উঠেছে। মোট ৫৪ কোটি টাকা ব্যয়ে ছয়টি প্যাকেজের আওতায় এ প্রকল্পের কাজ শুরু হয় ২০১৭ সালের নভেম্বরে। ২০১৮ সালের নভেম্বরে কাজ শেষ হওয়ার কথা থাকলেও এখন পর্যন্ত অর্ধেক কাজও শেষ হয়নি।

পৌরসভা সূত্র জানায়, প্রথম প্যাকেজে শহরের প্রধান সড়কে সাতটি কালভার্টসহ চার কিলোমিটার ড্রেন, দুই কিলোমিটার প্রধান সড়ক সংস্কার ও সম্প্রসারণ, তিন কিলোমিটার বিভিন্ন ধরনের লেন, ফুটপাত নির্মাণ ও আংশিক ডিভাইডার নির্মাণ কাজে প্রায় ২৪ কোটি টাকা ব্যয় করা হচ্ছে। দ্বিতীয় প্যাকেজে কাস্টম মোড় থেকে চৌড়হাস ফুলতলা হয়ে হাউজিং বিসিওডিতে ছয় কিলোমিটার সড়ক সংস্কার ও ড্রেন নির্মাণ কাজে ১০ কোটি ৩৫ লাখ টাকা ব্যয় করা হচ্ছে। তৃতীয় প্যাকেজে কোর্ট স্টেশন থেকে বড়বাজার গেট পর্যন্ত প্রায় পাঁচ কিলোমিটার ড্রেন নির্মাণে ১০ কোটি ৩১ লাখ টাকা ব্যয় ধরা হয়েছে। চতুর্থ প্যাকেজে ত্রিমোহনী থেকে জুগিয়া হয়ে কানাবিল মোড় ভাটাপাড়া এলাকায় ২.২৬ কিলোমিটার ড্রেন নির্মাণ এবং আট কিলোমিটার মরা গড়াই খনন কাজে ১১ কোটি ৪৯ লাখ টাকা ব্যয় করা হচ্ছে। পঞ্চম প্যাকেজে মঙ্গলবাড়িয়া থেকে ত্রিমোহনী মোড় পর্যন্ত তিন কিলোমিটার ড্রেন নির্মাণে ব্যয় হচ্ছে ১২ কোটি ২৯ লাখ টাকা। আর ষষ্ঠ প্যাকেজে মজমপুর গেট থেকে চৌড়হাস পর্যন্ত প্রায় তিন কিলোমিটার ড্রেন নির্মাণে ৯ কোটি ৭৫ লাখ টাকা ব্যয় করা হচ্ছে।

পৌরবাসীদের অভিযোগ, এসব কাজে নিম্নমানের নির্মাণসামগ্রী ব্যবহার করছে ঠিকাদারের লোকজন। প্রধান সড়ক সম্প্রসারণেও একই অবস্থা।

পৌরসভার নির্বাহী প্রকৌশলী রবিউল ইসলাম বলেন, ‘নিম্নমানের ইট ও খোয়া ব্যবহারের বিষয়টি জানার পর সরেজমিন পরিদর্শন করে আমরা সত্যতা পেয়েছিলাম। ওই সব সামগ্রী দ্রুত সরানোর জন্য ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানকে চিঠি দেওয়া হয়েছে।’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা