kalerkantho

সোমবার । ২৬ আগস্ট ২০১৯। ১১ ভাদ্র ১৪২৬। ২৪ জিলহজ ১৪৪০

বাজিতপুর-ঈশ্বরগঞ্জে গুলি ও কুপিয়ে পাঁচজনকে হত্যা

প্রিয় দেশ ডেস্ক   

১৫ আগস্ট, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



বাজিতপুর-ঈশ্বরগঞ্জে গুলি ও কুপিয়ে পাঁচজনকে হত্যা

ঈশ্বরগঞ্জে স্বামী ও ছেলেকে হারিয়ে মমতাজের আহাজারি। ছবি : কালের কণ্ঠ

ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জে বাবা-ছেলেসহ তিনজনকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে। কিশোরগঞ্জের বাজিতপুরে গুলি করে দুই ভাইকে হত্যা করেছে সন্ত্রাসীরা। ফরিদপুরের নগরকান্দায় নিখোঁজ ব্যবসায়ী ও ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইলে যুবকের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

হাওরাঞ্চল : কিশোরগঞ্জের বাজিতপুরে হাওর অধ্যুষিত গ্রাম মাইজচরের শ্যামপুরপাড়ায় গুলি করে দুই ভাইকে হত্যা করেছে চিহ্নিত সন্ত্রাসী ফারুক বাহিনী। গতকাল বুধবার সকালে ঘটনাটি ঘটে। এ সময় ফারুক বাহিনীর ছররা গুলিতে শিশু, নারীসহ অন্তত ১৮ জন বিদ্ধ হয়েছে। হত্যার শিকার শরীফ মিয়া (৩৫) ও ফোরকান মিয়া (২৮) সম্পর্কে চাচাতো ভাই। সুরতহাল শেষে পুলিশ জানিয়েছে, ফোরকানের শরীরে ৩১টি এবং শরীফের শরীরে ১৪টি ছররা গুলি বিঁধেছে। দুজনের মাথা, বুক ও হাতে এসব গুলি লেগেছে।

প্রত্যক্ষদর্শী, হতাহতদের পরিবার ও গ্রামবাসী সূত্রে জানা যায়, মাইজচর ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) সদস্য মো. বাক্কার মিয়ার ভাই চাল ব্যবসায়ী মওলা গতকাল সকালে ধান কেনার কাজ শেষে বাড়ি ফিরছিলেন। পথে চিহ্নিত সন্ত্রাসী ফারুক ও তার ভাই আনিস মওলাকে আটকে মারধর করে। খবর পেয়ে মওলার পক্ষের লোকজন লাঠিসোঁটা নিয়ে এগিয়ে আসে। এর পরপরই ফারুক ও আনিসের নেতৃত্বে একদল সন্ত্রাসী তাদের ওপর চড়াও হয়। এ সময় চারটি অবৈধ বন্দুক দিয়ে নির্বিচারে গুলি ছোড়ে তারা। এতে ইউপি সদস্য বাক্কারের পরিবারের সদস্যসহ কমপক্ষে ২০ জন গুলিবিদ্ধ হয়। তাদের উদ্ধার করে প্রথমে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এবং পরে জহুরুল ইসলাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক শরীফ ও ফোরকানকে মৃত ঘোষণা করেন।

বাজিতপুর থানার ওসি মো. খলিলুর রহমান পাটোয়ারী জানান, হত্যাকারীরা গাঢাকা দেওয়ায় কাউকে গ্রেপ্তার করা যায়নি।

ময়মনসিংহ (আঞ্চলিক) : ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জের কাঁঠালডাঙরী গ্রামে বাবা-ছেলেসহ তিনজনকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে। পূর্ববিরোধের জেরে গতকাল বুধবার সকালে ঘটনাটি ঘটে। এ সময় দুই নারীসহ চারজন গুরুতর আহত হয়। হত্যার শিকার তিনজন হলেন আবুল হাসেম, তাঁর কলেজপড়ুয়া ছেলে জহিরুল ইসলাম ও হাসেমের ভাই আব্দুর রাশিদের ছেলে আজিবুল। আহতদের ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। একাধিক সূত্রে জানা যায়, বিভিন্ন বিষয় নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে দুই ভাই হাসেম ও রাশিদের মধ্যে বিরোধ চলছিল। এ নিয়ে দুই পক্ষ মামলাও করেছে। অন্যদিকে খবর পেয়ে ময়মনসিংহ বিভাগের ডিআইজি নিবাস চন্দ্র মাঝি, জেলা পুলিশ সুপার শাহ আবিদ হোসেন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ক্রাইম) এস এ নেওয়াজি, সাখের হোসেন সিদ্দিকীসহ (গৌরীপুর সার্কেল) র‌্যাব-১৪ ও পিবিআইয়ের দল ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে।

ফরিদপুর : নিখোঁজের ১১ দিন পর নগরকান্দা উপজেলা সদরের মধ্যজগদিয়া এলাকায় ডোবা থেকে ব্যবসায়ী মোখলেসুর রহমান মোল্লার অর্ধগলিত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। ঈদের দিন গত সোমবার রাতে লাশটি উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় তাঁর ব্যাবসায়িক অংশীদার জামালের বিরুদ্ধে থানায় হত্যা মামলা হয়েছে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া : সরাইল উপজেলার বাড়ইজিবি এলাকায় খালার বাড়ি থেকে যুবকের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। গত রবিবার উদ্ধার করা লাশটি মো. একরামের (১৯)। ঘটনার সময় বাড়িতে কেউ ছিল না। এ ব্যাপারে মামলা করা হয়েছে। সরাইল থানার ওসি মো. শাহাদাৎ হোসেন বলেন, ‘ধারালো অস্ত্রের আঘাতে একরামকে হত্যা করা হয়েছে।’

মন্তব্য