kalerkantho

সোমবার। ১৯ আগস্ট ২০১৯। ৪ ভাদ্র ১৪২৬। ১৭ জিলহজ ১৪৪০

পুলিশের ধাওয়ায় গাড়ি থেকে লাফ, দুই ‘চোর’ নিহত

মানিকগঞ্জ ও সিংগাইর প্রতিনিধি   

১১ আগস্ট, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



মানিকগঞ্জের সিংগাইরে পুলিশের ধাওয়া খেয়ে পালানোর সময় চলন্ত পিকআপ থেকে লাফিয়ে পড়ে এক ‘গরুচোর’ নিহত হয়েছে। এ সময় পুলিশের গুলিতে একজন ও গণপিটুনিতে আরেকজন আহত হয়। পরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তাদের একজন মারা গেছে। গত শুক্রবার গভীর রাতে সিংগাইর বাসস্ট্যান্ড এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

সিংগাইর থানার ওসি খন্দকার ইমাম হোসেন জানান, শুক্রবার গভীর রাতে মানিকগঞ্জ সদর উপজেলার গোকুলনগর গ্রামে পাঁচ-ছয়জনের চোরের দল হানা দেয়। তারা গ্রামের তমছের আলীর বাড়ি থেকে একটি ষাঁড় ও আজমত আলীর বাড়ি থেকে একটি গাভি চুরি করে। এরপর পিকআপ ভ্যানে গরু দুটি উঠিয়ে চোরের দল সিংগাইরের দিকে পালিয়ে যায়। খবর পেয়ে পুলিশের উপপরিদর্শক আল মামুনের নেতৃত্বে একদল পুলিশ সিংগাইর বাসস্ট্যান্ড এলাকায় পিকআপটিকে (ঢাকা মেট্রো-ন-১৩-৬৬২৫) থামার নির্দেশ দেয়। এ সময় পিকআপটি পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করলে পুলিশ কর্মকর্তা মামুন লাফিয়ে পিকআপে উঠে পড়েন। শুরু হয় চোরের দলের সঙ্গে হাতাহাতি। একপর্যায়ে মামুন তাঁর পিস্তল বের করে গুলি ছুড়তে থাকেন। এ সময় বাবুল মণ্ডল (৪০) নামের এক চোর চলন্ত গাড়ি থেকে লাফ দেয়। এতে ঘটনাস্থলেই তাঁর মৃত্যু হয়। এদিকে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে পিকআপটি মানিকনগর আলিম মাদরাসার দেয়ালে আছড়ে পড়ে। তখন মামুন চিৎকার দিলে স্থানীয় লোকজন এসে দুই চোরকে পিটুনি দেয়। চোরের দলের বাকি সদস্যরা পালিয়ে যায়।

ওসি ইমাম হোসেন আরো জানান, গ্রেপ্তার মিলন দেওয়ান পায়ে গুলিবিদ্ধ হয়েছে। তাকে পুলিশ হেফাজতে ঢাকার একটি হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। অন্যজনের পরিচয় পাওয়া যায়নি। তাকে মানিকগঞ্জ সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। শনিবার বিকেলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়েছে। এ ছাড়া চোরের হাতে আহত উপপরিদর্শক আল মামুনকে সিংগাইর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। তিনি এ ঘটনায় একটি মামলা করেছেন।

মন্তব্য