kalerkantho

বুধবার । ২৩ অক্টোবর ২০১৯। ৭ কাতির্ক ১৪২৬। ২৩ সফর ১৪৪১                 

নগদ প্রণোদনার নীতিমালা জারি

১৫০০ ডলারের বেশি রেমিট্যান্সে পাসপোর্ট বাধ্যতামূলক

প্রতিবারে সর্বোচ্চ দেড় হাজার মার্কিন ডলার সমমূল্যের অর্থের জন্য ২ শতাংশ হারে প্রণোদনা

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৭ আগস্ট, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



ব্যাংকিং চ্যানেলের মাধ্যমে প্রবাসীদের রেমিট্যান্স পাঠাতে উৎসাহিত করার জন্য ২ শতাংশ নগদ প্রণোদনা দেওয়ার যে ঘোষণা সরকার দিয়েছিল, সেটির নীতিমালা জারি করেছে বাংলাদেশ ব্যাংক। গতকাল মঙ্গলবার বাংলাদেশ ব্যাংকের বৈদেশিক মুদ্রা নীতি বিভাগ থেকে এ নীতিমালা জারি করা হয়।

নীতিমালা অনুযায়ী, একজন প্রবাসীর রেমিট্যান্সের ওপর প্রতিবারে সর্বোচ্চ এক হাজার ৫০০ মার্কিন ডলার সমমূল্যের অর্থের জন্য ২ শতাংশ হারে কোনো ধরনের কাগজপত্র ছাড়াই প্রণোদনা সুবিধা প্রযোজ্য হবে। তবে এর চেয়ে বেশি পরিমাণের লেনদেনে প্রাপককে রেমিট্যান্স প্রেরকের বৈধ কাগজপত্র যেমন পাসপোর্টের কপি এবং বিদেশি নিয়োগদাতার দেওয়া নিয়োগপত্রের কপি, জনশক্তি, কর্মসংস্থান ও প্রশিক্ষণ ব্যুরোর (বিএমইটি) দেওয়া সনদপত্রের কপি, ব্যবসায় নিয়োজিত ব্যক্তির ক্ষেত্রে ব্যবসার লাইসেন্সের কপি ইত্যাদি ব্যাংক শাখায় দাখিল করার পর নগদ সহায়তা দেওয়া হবে। বিধিবহির্ভূতভাবে নগদ সহায়তা গ্রহণের প্রমাণ পাওয়া গেলে পরবর্তী সময়ে এ সুবিধা পাওয়া যাবে না।

নীতিমালায় আরো বলা হয়, সংশ্লিষ্ট ব্যাংক নগদ সহায়তা বাবদ পরিশোধিত অর্থের বিবরণী মাসিক ভিত্তিতে বাংলাদেশ ব্যাংকের প্রধান কার্যালয়ের বৈদেশিক মুদ্রা পরিদর্শন বিভাগে পরবর্তী মাসের ১৫ তারিখের মধ্যে দাখিল করবে। নগদ সহায়তা বাবদ পরিশোধিত অর্থের পক্ষে প্রয়োজনীয় তথ্যাদি বাংলাদেশ ব্যাংকের বা সরকারি বাণিজ্যিক নিরীক্ষা বিভাগে যাচাইয়ের জন্য পরিশোধের তারিখ থেকে অন্যূন তিন বছর পর্যন্ত শাখায় সংরক্ষণ করবে। বিধিবহির্ভূতভাবে প্রণোদনার নামে অর্থ প্রদান করলে প্রদত্ত অর্থ বাংলাদেশ ব্যাংকে রক্ষিত সংশ্লিষ্ট ব্যাংকের হিসাব বিকলনপূর্বক আদায় করা হবে। অনিয়মের সঙ্গে জড়িত ব্যাংক কর্মকর্তা বা কর্মচারীদের বিরুদ্ধে উপযুক্ত শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হবে। রেমিট্যান্স আহরণকারী ব্যাংক নগদ সহায়তা প্রদানের জন্য একটি পৃথক হিসাব পরিচালনা করবে। প্রাপকের হিসাব রেমিট্যান্স আহরণকারী ব্যাংক ভিন্ন অন্য কোনো ব্যাংকে হলে রেমিট্যান্স আহরণকারী ব্যাংক ২ শতাংশ নগদ সহায়তাসহ বিইএফটিএন, আরটিজিএস, এনপিএসবি বা এমএফএসের মাধ্যমে তাঁর (প্রাপকের)হিসাবে জমা করবে।

রেমিট্যান্স গ্রহণের দিন প্রাপকের পক্ষে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র দাখিল করা সম্ভব না হলে পরবর্তী পাঁচ কর্মদিবসের মধ্যে তা উপস্থাপন করলে রেমিট্যান্স প্রদানকারী ব্যাংক তাকে প্রাপ্য নগদ সহায়তা দেবে। রেমিট্যান্সের অর্থ ফেরত দেওয়ার মতো কোনো পরিস্থিতির উদ্ভব হলে নগদ সহায়তাসহ সমুদয় রেমিট্যান্স অথবা প্রযোজ্য ক্ষেত্রে শুধু নগদ সহায়তা রেমিট্যান্স আহরণকারী ব্যাংককে ফেরত দিতে হবে। এ প্রণোদনা চলতি বছরের ১ জুলাই থেকে কার্যকর হবে বলেও নীতিমালায় উল্লেখ করা হয়েছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা