kalerkantho

বুধবার । ২৩ অক্টোবর ২০১৯। ৭ কাতির্ক ১৪২৬। ২৩ সফর ১৪৪১                 

প্রয়াণ দিবসে বিশ্বকবিকে শ্রদ্ধা-ভালোবাসায় স্মরণ

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৭ আগস্ট, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



প্রয়াণ দিবসে বিশ্বকবিকে শ্রদ্ধা-ভালোবাসায় স্মরণ

বিশ্বকপি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ৭৮তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে গতকাল বাংলা একাডেমি আয়োজিত একক বক্তৃতা ও সংগীতানুষ্ঠানের আয়োজন করে। অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন জাতীয় অধ্যাপক আনিসুজ্জামান। ছবি : কালের কণ্ঠ

বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ৭৮তম মৃত্যুবার্ষিকী ছিল গতকাল মঙ্গলবার। এ উপলক্ষে নানা প্রতিষ্ঠান শ্রদ্ধা ও ভালোবাসায় স্মরণ করে কবিগুরুকে। বাংলা একাডেমি গতকাল বিকেলে একাডেমির কবি শামসুর রাহমান সেমিনার কক্ষে একক বক্তৃতা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। এ ছাড়া ছায়ানটে ছিল আয়োজন।

বাংলা একাডেমিতে ‘রবীন্দ্রজীবনে ১৯১৯ : তাৎপর্যপূর্ণ একটি বছর উপনিবেশবাদের বিরুদ্ধে স্পষ্ট ও সাহসী অবস্থান’ শীর্ষক একক বক্তৃতা দেন অধ্যাপক সৈয়দ আজিজুল হক। সভাপতিত্ব করেন জাতীয় অধ্যাপক আনিসুজ্জামান।

অনুষ্ঠানে স্বাগত ভাষণে বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক হাবীবুল্লাহ সিরাজী বলেন, রবীন্দ্রনাথের প্রয়াণ দিবসে তাঁকে স্মরণ করতে গিয়ে বলতে হয় জীবনের মতো মৃত্যুকেও তিনি আবিষ্কার করেছেন অমৃত করে। কারণ তিনি বিশ্বাস করতেন মহৎ মানবাত্মার কোনো বিলয় নেই। রবীন্দ্রনাথের ৭৮তম মৃত্যুবার্ষিকীর প্রাক্কালে বাংলা একাডেমি কর্তৃক প্রকাশিত হয়েছে আহমদ রফিক প্রণীত রবীন্দ -জীবন চতুর্থ খণ্ড।

একক বক্তা অধ্যাপক সৈয়দ আজিজুল হক বলেন, জালিয়ানওয়ালাবাগ হত্যাকাণ্ডের শতবর্ষপূর্তি হলো এ বছর। ১৯১৯ সালে ভারতে ব্রিটিশ ঔপনিবেশিক শাসনকালে চরম নৃশংস এ ঘটনা ঘটেছিল। এর সঙ্গে জড়িয়ে আছে রবীন্দ্রনাথের নাম। তিনি এই নৃশংসতার প্রতিবাদে ‘নাইট’ উপাধি পরিত্যাগ করেন। এ ঘটনাটি যেমন তাঁর দুরন্ত সাহসের উদাহরণ, তেমনি মানবজাতির প্রতি অসামান্য দায়বোধেরও পরম দৃষ্টান্ত। আরো একটি অনন্য ঘটনার জন্য ওই বছরটি রবীন্দ্রজীবনে বিশেষভাবে গুরুত্বপূর্ণ। সেটি হলো : শান্তি নিকেতনের ব্রাহ্মচর্য বিদ্যালয়কে বিশ্বভারতীতে রূপান্তরিত করার যাত্রা শুরু আজ থেকে ১০০ বছর আগে, ১৯১৯ সালে। তিনি বলেন, বিশ্বভারতীর মধ্য দিয়ে যে বিশ্বাত্মবোধ রবীন্দ্রনাথ সৃষ্টি করতে চেয়েছেন, সেখানে প্রাচ্য ও পাশ্চাত্যের জ্ঞানচর্চার মিলনই ছিল তাঁর একান্তভাবে কাম্য।

সভাপতির বক্তব্যে জাতীয় অধ্যাপক আনিসুজ্জামান বলেন, জালিয়ানওয়ালাবাগ হত্যাকাণ্ডের প্রতিবাদে একাকী এবং সুদৃঢ় অবস্থান অন্যায়ের বিরুদ্ধে রবীন্দ্রনাথের জীবনব্যাপী অঙ্গীকারেরই প্রমাণবহ। মনুষ্যত্বের অপমান নিজ দেশে কিংবা পৃথিবীর যেখানে সংঘটিত হয়েছে সেখানেই তিনি স্বাদেশিকতা-স্বাজাতিকতার ঊর্ধ্বে উঠে মানবিক আন্তর্জাতিকতাবাদের প্রেরণায় তার প্রতিবাদ করেছেন।

সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে রবীন্দ্র-কবিতা আবৃত্তি করেন বাচিক শিল্পী ভাস্বর বন্দ্যোপাধ্যায়, রবীন্দ্রসংগীত পরিবেশন করেন মহিউজ্জামান চৌধুরী ও অণিমা রায়। যন্ত্রানুষঙ্গে ছিলেন এনামুল হক ওমর (তবলা), রিচার্ড কিশোর (গিটার) ও এ বি এম তানভীর আলম সজীব (কি-বোর্ড)।

গান-কবিতায় ছায়ানটের রবীন্দ্র স্মরণ

গতকাল শ্রাবণসন্ধ্যায় রবীন্দ্রনাথকে স্মরণ করে অনুষ্ঠানের আয়োজন করে ঐতিহ্যবাহী সাংস্কৃতিক প্রতিষ্ঠান ছায়ানট। রবীন্দ্র ঐশ্বর্যময় সৃষ্টির আলোয় সাজানো ছিল সে স্মরণানুষ্ঠান। কবিগুরুর বহুমাত্রিক সৃষ্টিসম্ভারে সাজানো সন্ধ্যাকালীন অনুষ্ঠানটি প্রশান্তি ছড়িয়েছে শ্রোতা-দর্শকের অন্তরে।

গদ্য-পদ্য ও সংগীতের সমন্বয়ে দুটি পরিবেশনা উপস্থাপন করে কণ্ঠশীলন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা