kalerkantho

সোমবার । ১৪ অক্টোবর ২০১৯। ২৯ আশ্বিন ১৪২৬। ১৪ সফর ১৪৪১       

চারজনের বিরুদ্ধে যৌন নির্যাতনের অভিযোগ

নওগাঁর মান্দা, যশোর, কুড়িগ্রাম ও ঢাকার ধামরাইয়ে এসব ঘটনা ঘটে

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

৬ আগস্ট, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



নওগাঁর মান্দায় জুয়েল রানা নামের এক ইমাম অষ্টম শ্রেণির এক ছাত্রীকে ধর্ষণ করেছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। যশোরে শাহিনুর রহমান নামের এক ব্যক্তি গ্রেপ্তার হয়েছেন বুদ্ধিপ্রতিবন্ধী শিশুর শ্লীলতাহানির অভিযোগে। কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ীতে সংখ্যালঘু নারীকে ধর্ষণচেষ্টার অভিযোগে মামলা হয়েছে। তৃতীয় শ্রেণির ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে ঢাকার ধামরাইয়ে হৃদয় হোসেন নামের এক যুবকের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। বিস্তারিত কালের কণ্ঠ’র প্রতিনিধিদের পাঠানো খবরে—

মান্দা : অভিযুক্ত জুয়েল রানা (২০) উপজেলার কুসুম্বা ইউনিয়নের বড়বেলালদহ গ্রামের শহিদুল ইসলামের ছেলে। জুয়েল স্থানীয় একটি মসজিদের ইমাম হিসেবে দায়িত্বে আছেন।

ভুক্তভোগীর অভিযোগ অনুযায়ী, একই প্রতিষ্ঠানে লেখাপড়ার সুবাদে জুয়েল রানার সঙ্গে তার প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। বিয়ের প্রলোভন দিয়ে গত রবিবার বিকেলে ওই ছাত্রীকে বুড়িদহ বাজার সংলগ্ন আফজাল হোসেন দুখুর বাড়িতে নিয়ে যান জুয়েল। এ সময় ওই বাড়িতে দুখুর ছেলে রনি ছাড়া আর কেউ ছিল না। এ সময় ওই ছাত্রীকে ধর্ষণ করেন জুয়েল।

তবে স্থানীয় লোকজন বলছে, দুখুর বাড়িতে অপরিচিত ছেলে-মেয়েকে দেখতে পেয়ে তাদের আটক করে তারা। পরে ইউপি সদস্য রূপভান বিবি ওরফে তারা মেম্বার তাদের হেফাজতে নেন। খবর পেয়ে কুসুম্বা ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) সদস্য সাইফুল ইসলাম, রফিকুলসহ জুয়েলের আত্মীয়-স্বজন এসে জুয়েলকে নিয়ে যায়।

মান্দা থানার ওসি মোজাফফর হোসেন বলেন, এ ঘটনায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

যশোর : বুদ্ধিপ্রতিবন্ধী শিশুকে (৯) শ্লীলতাহানি করার অভিযোগে গতকাল সোমবার ভোরে যশোর রেলস্টেশন এলাকা থেকে শাহিনুর রহমান (৪৫) নামের এক ব্যক্তিকে পুলিশ গ্রেপ্তার করেছে। এ ঘটনায় ওই শিশুর বাবা কোতোয়ালি থানায় ধর্ষণচেষ্টার অভিযোগে মামলা করেছেন। শাহিনুর শহরতলির শেখহাটি এলাকার মৃত মসলেম বিশ্বাসের ছেলে।

যশোর তালবাড়িয়া পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ এসআই নজরুল ইসলাম জানান, গত রবিবার দুপুরে ওই শিশুকে ফুসলিয়ে তরফ নওয়াপাড়া এলাকার আমিনুরের কলাবাগানে নিয়ে যান শাহিনুর। সেখানে শিশুটির পোশাক খুলে ফেললে সে চিৎকার দেয়। এ সময় লোকজন ছুটে এলে শাহিনুর পালিয়ে যান।

কুড়িগ্রাম : ফুলবাড়ীতে সংখ্যালঘু নারীকে (২৮) ধর্ষণচেষ্টা করা হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। গত শনিবার বিকেলে উপজেলার দক্ষিণ বড়ভিটা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। গতকাল দুপুরে গৃহবধূর স্বামী বাদী হয়ে স্থানীয় সাদ্দাম হোসেনের বিরুদ্ধে ফুলবাড়ী থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা করেছেন।

বাদী জানান, গত শনিবার বিকেলে শুকানো পাট বাড়িতে নিয়ে আসার সময় তাঁর স্ত্রীকে ধর্ষণ করার চেষ্টা করেন সাদ্দাম। এ সময় তাঁর চিৎকারে স্থানীয় লোকজন এগিয়ে এলে সাদ্দাম পালিয়ে যান।

ধামরাই : ভুক্তভোগীকে ঢাকা মেডিক্যাল ওয়ানস্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে পাঠানো হয়েছে। গতকালের এ ঘটনার পর থেকে অভিযুক্ত হৃদয় হোসেন গাঢাকা দিয়েছেন। হৃদয় ছোট কালামপুর আদর্শ গ্রামের প্রবাসী আব্দুল হালিমের ছেলে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, ওই ছাত্রীকে দীর্ঘদিন ধরে উত্ত্যক্ত করে আসছিলেন হৃদয়। গতকাল ওই ছাত্রী বংশী নদীতে গোসল করে বাড়ি ফিরছিল। এ সময় ভয়ভীতি দেখিয়ে তাকে একটি ঘরের ভেতর আটকে নির্যাতন চালান হৃদয়। ভুক্তভোগীর চিৎকারে আশপাশের লোকজন এগিয়ে গেলে হৃদয় পালিয়ে যান। এ ঘটনায় থানায় মামলা হয়েছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা