kalerkantho

রবিবার  । ১৫ চৈত্র ১৪২৬। ২৯ মার্চ ২০২০। ৩ শাবান ১৪৪১

ধামরাইয়ে শূকরের চর্বি দিয়ে ডেইরি ও পোল্ট্রি ফিড

ধামরাই (ঢাকা) প্রতিনিধি   

৫ আগস্ট, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ঢাকার অদূরে ধামরাইয়ের বাথুলিতে কেবিসি অ্যাগ্রো প্রডাক্টস (প্রা.) লিমিটেড কারখানায় প্রাণী ও মৎস্যসম্পদ অধিদপ্তর এবং র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নের ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযানে তিন হাজার মেট্রিক টন নিষিদ্ধ শূকরের মাংস, হাড় ও চর্বি জব্দ করেছেন। এ ঘটনায় কারখানা কর্তৃপক্ষকে ৭৫ লাখ টাকা জরিমানা ও ভোজ্য তেল উৎপাদন কারখানার প্রসেস প্লান্ট সাময়িকের জন্য সিলগালা করা হয়েছে। এ অভিযান পরিচালনা করা হয় গত শনিবার সকাল থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত।

এ অভিযানে নেতৃত্ব দেন ঢাকা কুর্মিটোলা র‌্যাব সদর দপ্তরের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. সারওয়ার আলম। সঙ্গে ছিলেন ঢাকা জেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডা. মো. এমদাদুল হক তালুকদার, জেলা মৎস্য কর্মকর্তা সৈয়দ মো. আলমগীর, মৎস্য অফিস, ঢাকার সিনিয়র সহকারী পরিচালক সরকার মোহাম্মদ রফিকুল আলম প্রমুখ। অভিযানটি সমন্বয় করেন র‌্যাব-৪ ক্রাইম প্রিভেনশন কম্পানির স্কোয়াড কমান্ডার সহকারী পুলিশ সুপার উনু মং।

ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. সারওয়ার আলম বলেন, ‘৯ মাস আগে আমদানি নিষিদ্ধ শূকরের চর্বি, মাংস ও হাড় কেবিসি অ্যাগ্রো (প্রা.) লিমিটেড হংকং থেকে আমদানি করে আসছে। এ ছাড়া এ প্রতিষ্ঠানের বিশ্বাস পোল্ট্রি ফিড সরকারি আদেশ অমান্য করে মিট অ্যান্ড মিল ব্যবহার করে তারা পোল্ট্রি ও ডেইরি ফিড তৈরি করে বাজারজাত করছে, যা মারাত্মক অন্যায়।’ তিনি আরো জানান, শূকরের মাংস বা এমবিএম ও রাইস ব্রান অয়েল তৈরির উপকরণ পাশাপাশি রাখা হয়েছে, যা ভ্রাম্যমাণ আদালতের কাছে সন্দেহ হয়েছে যে এমবিএম শুধু পোল্ট্রি ও ডেইরি ফিডে ব্যবহার করছে, নাকি এর বাইরে অন্য কিছু করছে বিষয়টি আরো জিজ্ঞাসাবাদে বেরিয়ে আসবে। তবে কারখানার মহাব্যবস্থাপক (জিএম) তাপস দেবনাথ বলেন, ‘এমবিএম শুধু পোল্ট্রি ও ডেইরি ফিডেই ব্যবহার করা হয়।’

এ ছাড়া কারখানার মহাব্যবস্থাপক তাপস দেবনাথ ও পরিচালক জাহিদুর রহমানের কাছ থেকে আরো দুই লাখ ৯৮ হাজার ৪০ মেট্রিক টন শূকরের চর্বি, মাংস ও হাড়ের আমদানীকৃত চালান ফরম জব্দ করেন আদালত। যা কুষ্টিয়া কেএনবি নামক প্রতিষ্ঠানের নামে করা হয়। যার আনুমানিক মূল্য ১১ কোটি ২৫ লাখ টাকা।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা