kalerkantho

মঙ্গলবার । ১৫ অক্টোবর ২০১৯। ৩০ আশ্বিন ১৪২৬। ১৫ সফর ১৪৪১       

ধুনটে বাঙ্গালী নদীর বাঁধে ভাঙন

ধুনট (বগুড়া) প্রতিনিধি   

৩ আগস্ট, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বাঙ্গালী নদীর পানি বিপত্সীমা অতিক্রম করে বগুড়ার ধুনট উপজেলার পেচিবাড়ি বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধের প্রায় ১০০ মিটার অংশ নদীগর্ভে বিলীন হয়েছে। একই সঙ্গে ভাঙনের ঝুঁকিতে পড়েছে বসতভিটা ও আবাদি জমি। ভাঙনের ফলে বাঁধের ওপর দিয়ে চলাচলকারী প্রায় ৫০ গ্রামের মানুষের যোগাযোগব্যবস্থা বন্ধ হয়ে গেছে। গতকাল শুক্রবার সকালে এ বাঁধ ভাঙনের ঘটনা ঘটে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ১৯৮৭ সালে ধুনট উপজেলার বথুয়াবাড়ি থেকে শেরপুর উপজেলার সাহেববাড়ী ঘাট পর্যন্ত বাঙ্গালী নদীর পূর্ব তীরে ১০ কিলোমিটার দীর্ঘ বন্যানিয়ন্ত্রণ বাঁধ নির্মাণ করে সমন্বিত উন্নয়ন প্রকল্প (ডিআইডিপি) নামের একটি বেসরকারি সংস্থা। এ বাঁধ নির্মাণের ফলে ধুনট উপজেলার চৌকিবাড়ি, মথুরাপুর, গোপালনগর এবং শেরপুর উপজেলার সুঘাট ইউনিয়নের প্রায় দুই লাখ পরিবার বন্যার কবল থেকে রক্ষা পায়।

প্রবল স্রোতে পেচিবাড়ি গ্রামের দক্ষিণ অংশে বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধে ভাঙন দেখা দিয়েছে। গতকাল সকাল পর্যন্ত মাটির তৈরি বাঁধের চার স্থানে প্রায় ১০০ মিটার অংশ নদীগর্ভে বিলীন হয়েছে। ফলে বাঁধের ওপর দিয়ে যাতায়াতের পথ বন্ধ হয়ে গেছে।

উপজেলার পেচিবাড়ি গ্রামের ব্যবসায়ী নিতাই চন্দ্র জানান, নির্মাণের পর থেকে ঈদুরের গর্ত, অতিবৃষ্টি ও নদীর পানির প্রবল তোড়ে বাঁধের বিভিন্ন স্থানে ক্ষতি হয়। অনেক দিন আগে বাঁধের কিছু অংশে মেরামতকাজ করা হয়। তবুও বাঁধের ভাঙন অব্যাহত রয়েছে।

বগুড়া পানি উন্নয়ন বোর্ডের (পাউবো) নির্বাহী প্রকৌশলী হাসান মাহমুদ বলেন, গতকাল বিকেল ৫টা পর্যন্ত বাঙ্গালী নদীর পানি বিপত্সীমার ৬৫ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। প্রবল স্রোতে বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধের বেশ কয়েকটি স্থানে ভাঙন দেখা দিয়েছে। সেখানে জরুরিভাবে মেরামত শুরু করা হয়েছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা