kalerkantho

শুক্রবার  । ১৮ অক্টোবর ২০১৯। ২ কাতির্ক ১৪২৬। ১৮ সফর ১৪৪১              

বিয়ানীবাজারে প্রসূতির মৃত্যুর ঘটনায় হাসপাতালে হামলা

বিয়ানীবাজার (সিলেট) প্রতিনিধি   

২ আগস্ট, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সিলেটের বিয়ানীবাজার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসকের অবহলোয় এক প্রসূতির মৃত্যুর অভিযোগে তাঁর স্বজনরা হাসপাতালে হামলা চালিয়েছে। বুধবার রাত ২টার দিকে স্বজনরা হাসপাতালের দায়িত্বশীলদের অবরুদ্ধ করে এ হামলা চালায়। খবর পেয়ে পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে। হতভাগ্য প্রসূতির নাম সালমা আক্তার রুবিনা। তাঁর বাড়ি উপজেলার শ্রীধরা গ্রামে।

স্বজনদের অভিযোগ, সুস্থা বাচ্চা ডেলিভারির পর প্রসূতির অতিরিক্ত রক্তক্ষরণ হলেও চিকিৎসকরা কোনো ব্যবস্থা নেননি। ডেলিভারি কক্ষে বালতিতে করে রক্ত অপসারণ করা হলেও তা স্বজনদের জানানো হয়নি কিংবা রক্ত দেওয়ার ব্যবস্থা করা হয়নি। এ ছাড়া মারা যাওয়ার তথ্য গোপন করে তাঁকে সিলেট ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়।

অন্যদিকে হাসপাতালের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, অবহেলা ছিল না। প্রসবোত্তর রক্তক্ষরণজনিত জটিলতার (পোস্টপারটাম হেমারেজ-পিপিএইচ) কারণে প্রসূতি রুবিনাকে বাঁচানো যায়নি। চিকিৎসকরা সর্বাত্মক চেষ্টা করেছেন। পিপিএইচ বাংলাদেশে প্রসূতি মৃত্যুর অন্যতম কারণ বলে জানানো হয়, যা জরায়ুর দুর্বল গঠনের জন্য ঘটে থাকে।

সালমা আক্তার রুবিনা বুধবার হাসপাতালে শারীরিক পরীক্ষার জন্য যান। এ সময় কর্তব্যরত চিকিৎসক ও নার্স তাঁর প্রসবের সময় হয়ে গেছে জানিয়ে ডেলিভারি করতে হবে বলে জানান। রাত ৮টায় ডেলিভারি রুমে রুবিনাকে নিয়ে যাওয়ার পর রাত ১০টার দিকে একটি কন্যাসন্তানের জন্ম হয়। নবজাতক সুস্থ থাকলেও রুবিনার শারীরিক অবস্থার অবনতি ঘটে। রক্তক্ষরণ শুরু হলে রাত সাড়ে ১১টার দিকে তাঁকে সিলেটে পাঠানোর জন্য দায়িত্বশীলরা স্বজনদের জানান। সিলেট ওসমানী মেডিক্যাল হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নেওয়ার পর স্বজনদের জানানো হয়, প্রায় দেড় ঘণ্টা আগে রুবিনার মৃত্যু হয়েছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা