kalerkantho

শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ী

সাত ঘণ্টা পর বিকল্প পথে ফেরি চলছে

মুন্সীগঞ্জ প্রতিনিধি    

২ আগস্ট, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



নাব্য সংকটের কারণে শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ী নৌপথে সাত ঘণ্টা চলাচল বন্ধ থাকার পর গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে বিকল্প চ্যানেল দিয়ে ফেরি চলাচল ফের শুরু হয়েছে। তবে এই চ্যানেল দিয়ে দুটি ফেরি পাশাপাশি অতিক্রম করতে না পারায় নৌপথ পারি দিতে সময় লাগছে প্রায় দ্বিগুণ। এর আগে গত বুধবার রাত ১২টার দিকে নৌপথের নিয়মিত চ্যানেলে নাব্যতা সংকটের কারণে সব ধরনের ফেরি চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। এ সময় ডুবোচরে আটকা পড়ে একটি ফেরি। দীর্ঘ সাত ঘণ্টা চেষ্টার পর ফেরিটি উদ্ধার করা হয়। এ অবস্থা চলতে থাকলে আসন্ন ঈদে এ নৌপথের যাত্রীরা দুর্ভোগে পড়তে পারে।

বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন সংস্থার (বিআইডাব্লিউটিসি) শিমুলিয়া ঘাটের মেরিন ম্যানেজার এ কে এম শাহজাহান খান জানান, পদ্মায় পলি পড়ে নাব্য সংকটের কারণে ফেরিগুলো চলতে পারছে না। ফেরি চলাচলের জন্য পর্যাপ্ত গভীরতা নেই এ নৌপথে। বর্তমান রানিং চ্যানেল লৌহজং টার্নিং পয়েন্টের ডাউন চ্যানেলের মুখে নাব্য সংকট দেখা দেওয়ায় ফেরিগুলো চ্যানেল পাড়ি দিতে পারছে না। এখানে ফেরি চলাচলের জন্য পর্যাপ্ত পানি নেই। লৌহজং টার্নিং পয়েন্টের মুখে এলেই নাব্য সংকটের কারণে ফেরিগুলো ডুবোচরে আটকে যাচ্ছে। গত বুধবার রাত ১১টার দিকে রো-রো ফেরি এনায়েতপুরী শিমুলিয়া ঘাট থেকে ছেড়ে গিয়ে লৌহজং টার্নিং পয়েন্টের ডাউন মুখে ডুবোচরে আটকে যায়। রাতভর চেষ্টা করে সাত ঘণ্টা পরে বৃহস্পতিবার ভোর ৬টায় ফেরিটি উদ্ধার করা হয়। এর আগে গত মঙ্গলবার লৌহজং টার্নিং পয়েন্টের মুখের আপ চ্যানেলটিও নাব্য সংকটের কারণে বন্ধ হয়ে যায়। তাই বাধ্য হয়ে বুধবার মধ্যরাত থেকে এ চ্যানেলে ফেরি চলাচল বন্ধ করে দেওয়া হয়। বিআইডাব্লিউটিএর উপপরিচালক (নৌ সংরক্ষণ ও পরিচালন বিভাগ) এস এম আজগর আলী জানান, ‘গতকাল সকাল থেকে বিকল্প চ্যানেলটি খুলে দিয়েছি। এখন ফেরি চলাচল করছে।’

মন্তব্য