kalerkantho

সোমবার । ১৪ অক্টোবর ২০১৯। ২৯ আশ্বিন ১৪২৬। ১৪ সফর ১৪৪১       

প্রতিবাদী নুসরাতকে পুড়িয়ে হত্যা
পাঁচজনের সাক্ষ্যগ্রহণ

আলামতে কেরোসিন জাতীয় দাহ্য পদার্থ পাওয়া যায়

ফেনী প্রতিনিধি   

১ আগস্ট, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



আলামতে কেরোসিন জাতীয় দাহ্য পদার্থ পাওয়া যায়

ফেনীর সোনাগাজী ইসলামিয়া সিনিয়র ফাজিল মাদরাসার ছাত্রী নুসরাত জাহান রাফিকে আগুনে পুড়িয়ে হত্যা মামলায় গতকাল বুধবার আরো পাঁচজনের সাক্ষ্য গ্রহণ করেছেন আদালত। ফেনীর নারী ও শিশু নির্যাতন ট্রাইব্যুনালের বিচারক মামুনুর রশিদের আদালতে সাক্ষ্য গ্রহণ করা হয়। এ নিয়ে মোট ৬৮ জনের সাক্ষ্য গ্রহণ করা হলো।

আদালত সূত্রের বরাত দিয়ে জেলা জজ আদালতের সরকারি কৌঁসুলি হাফেজ আহাম্মদ বলেন, বুধবার আদালতে পাঁচজন সাক্ষী তাঁদের সাক্ষ্য দিয়েছেন। তাঁরা হলেন ফেনীর জ্যেষ্ঠ বিচার বিভাগীয় হাকিম ও সোনাগাজী আমলি আদালতের বিচারক মো. জাকির হোসাইন, রাজধানীর মহাখালীর প্রধান রাসায়নিক পরীক্ষাগারের রাসায়নিক পরীক্ষক পিংকু পোদ্দার, সহকারী রাসায়নিক পরীক্ষক মো. নজরুল ইসলাম, চট্টগ্রামে সিআইডির সহকারী রাসায়নিক পরীক্ষক রোমানা আক্তার ও পিবিআইয়ের ডিজিটাল ল্যাব পরিদর্শক মোহাম্মদ আব্দুল বাদি। আজ বৃহস্পতিবার মামলার আরো সাতজন সাক্ষীর সাক্ষ্য গ্রহণ করা হবে।

আদালত সূত্র জানায়, সাক্ষ্য দিতে গিয়ে জ্যেষ্ঠ হাকিম মো. জাকির হোসাইন বলেন, ‘৬ এপ্রিলের ঘটনার পর বিভিন্ন সময় মামলার সাতজন আসামি আমার কাছে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেয়। আমি সকল নিয়ম-কানুন মেনে এই সাত আসামির জবানবন্দি গ্রহণ করি। এ ছাড়া মামলার ছয়জন সাক্ষীও আমার কাছে ১৬১ ধারায় বয়ান দিয়েছিলেন।’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা