kalerkantho

রংপুর-৩ আসনে উপনির্বাচন

জাপাকে ছাড় নয়, আওয়ামী লীগের তৃণমূলের ভরসা খালেকুজ্জামান

স্বপন চৌধুরী, রংপুর   

১ আগস্ট, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



জাপাকে ছাড় নয়, আওয়ামী লীগের তৃণমূলের ভরসা খালেকুজ্জামান

সদ্য প্রয়াত সংসদ সদস্য এইচ এম এরশাদের মৃত্যুতে শূন্য ঘোষিত রংপুর-৩ (সদর) আসনের উপনির্বাচনে অংশ নিচ্ছে কোন কোন রাজনৈতিক দল, মনোনয়নই বা পাচ্ছেন কারা—তা নিয়ে চলছে আলোচনা। জাতীয় পার্টির (জাপা) দুর্গ বলে পরিচিত এ আসনে প্রার্থী চূড়ান্তে হিমশিম খাচ্ছে দলটি। তবে এবার জাপাকে ছাড় দিতে নারাজ আওয়ামী লীগ। বিএনপিও এরই মধ্যে এই উপনির্বাচনে অংশ নেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে। এ ছাড়া আরো অন্তত ১৫টি রাজনৈতিক দল নির্বাচনে অংশ নেবে। সব মিলিয়ে উপনির্বাচনকে ঘিরে সরগরম রংপুর-৩ আসন।

দিন যত ঘনিয়ে আসছে, নৌকার প্রার্থীর দাবি তত তুঙ্গে উঠছে। এবার আসনটি জাতীয় পার্টিকে ছাড় দিতে নারাজ তৃণমূলের নেতাকর্মীসহ এলাকার মানুষ। তাদের দাবি, এ আসনে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য চৌধুরী খালেকুজ্জামানকে মহাজোটের প্রার্থী করা হোক।

রংপুর-৩ আসনে জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান এইচ এম এরশাদ দীর্ঘদিন এমপি থাকলেও উন্নয়ন কর্মকাণ্ডে সম্পৃক্ত না হওয়ায়, মানুষের খোঁজখবর না নেওয়ায় ক্ষুব্ধ এলাকাবাসী। ফলে এ আসনের উন্নয়ন সরকারদলীয় এমপি দ্বারা হোক—এটাই চাইছে তারা। এদিকে গত কয়েক দিন ধরে ভোটারদের সঙ্গে গণসংযোগ করেছেন চৌধুরী খালেকুজ্জামান। নিজের যোগ্যতা তুলে ধরে হাট-বাজার, পাড়া-মহল্লায় সাধারণ মানুষের সঙ্গে কুশল বিনিময় করছেন তিনি। খোঁজখবর রাখছেন এলাকার সমস্যার। সেই সঙ্গে এ আসনে মনোনয়ন পেতে কেন্দ্রের সঙ্গে সার্বক্ষণিক যোগাযোগও রাখছেন তিনি।

এ আসনে তিনবার মনোনয়ন দেওয়া হয়েছিল চৌধুরী খালেকুজ্জামানকে। পরে মহাজোটের কারণে তা প্রত্যাহার করে নেওয়া হয়। একাদশ সংসদ নির্বাচনে ‘আর কোনো ছাড় নয়, রংপুর-৩ আসনে নৌকা চাই’ স্লোগানে তৃণমূলের নেতাকর্মীসহ সর্বস্তরের মানুষ চৌধুরী খালেকুজ্জামানের পক্ষে সভা-সমাবেশ, মানববন্ধন ও গণসংযোগ করেছে।

রংপুর জেলা কৃষক লীগের সিনিয়র সহসভাপতি সামসুল ইসলাম লিচু এবং আওয়ামী লীগ নেতা আবদুল হালিম প্রামাণিক বলেন, ‘১৯৭৩ সালের পর এই আসনে নৌকার কোনো এমপি নেই। আর ২০০১ সালের পর মহাজোটের কারণে আওয়ামী লীগ প্রার্থী দেয়নি। এ আসনে আওয়ামী লীগের এমপি থাকলে উন্নয়ন ত্বরান্বিত হতো, কলকারখানা গড়ে উঠত, বেকারদের কর্মসংস্থান হতো। তাই আসন্ন উপনির্বাচনে নৌকা মার্কায় ভোট দিয়ে ভাগ্য পরিবর্তনের সুযোগ চায় রংপুরের সর্বস্তরের মানুষ।’

মনোনয়নপ্রত্যাশী চৌধুরী খালেকুজ্জামান কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘রংপুর-৩ আসনে সরকারদলীয় নির্বাচিত প্রতিনিধি না থাকায় গ্যাস, চার লেন সড়কসহ নানা উন্নয়ন থেকে বঞ্চিত রংপুরবাসী। এখানকার মানুষ তা উপলব্ধি করছে।’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা