kalerkantho

বুধবার । ১৬ অক্টোবর ২০১৯। ১ কাতির্ক ১৪২৬। ১৬ সফর ১৪৪১       

বিএসএমএমইউতে চিকিৎসকদের আন্দোলন

ভাঙচুর ও হামলার ঘটনায় নাশকতার মামলা

আজ সিন্ডিকেট সভা

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৩ জুন, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



চিকিৎসক নিয়োগ পরীক্ষা বাতিল এবং ভিসির পদত্যাগের দাবিতে আন্দোলনকারী চিকিৎসকদের ভিসির অফিস ভাঙচুর ও রেজিস্ট্রারের ওপর হামলার ঘটনায় নাশকতা মামলা করেছে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব  মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়-বিএসএমএমইউ কর্তৃপক্ষ। গত মঙ্গলবার দুপুরের আগে এ ঘটনার পর রাতে বিশ্ববিদ্যালয়ের অতিরিক্ত রেজিস্ট্রার ও ভারপ্রাপ্ত প্রক্টর অধ্যাপক ডা. আসাদুল ইসলাম বাদী হয়ে শাহবাগ থানায় মামলাটি করেন। মামলায় ৪০-৫০ জন আন্দোলনকারীকে আসামি করা হয়েছে। এর মধ্যে ১৭ জনের নাম উল্লেখ করা হলেও অন্যরা অজ্ঞাতপরিচয়। নিয়োগ পরীক্ষায় অকৃতকার্যদের একটি অংশ এই নাশকতা ঘটিয়েছে বলে মামলায় অভিযোগ করা হয়েছে।

শাহবাগ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আবুল হাসান মামলা করার কথা স্বীকার করে বলেন, ইতিমধ্যে তদন্ত শুরু হয়েছে, ভিডিও ফুটেজ দেখে দায়ীদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

এদিকে আজ বৃহস্পতিবার বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের সিন্ডিকেটের সভা হওয়ার কথা রয়েছে। সভায় উদ্ভূত পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনা ও সিদ্ধান্তের ভিত্তিতে পরবর্তী পদক্ষেপ নেওয়া হবে বলে কালের কণ্ঠকে জানান ভিসি অধ্যাপক ডা. কনক কান্তি বড়ুয়া।

বিএসএমএমইউ সূত্র জানায়, বিশ্ববিদ্যালয়টিতে ২০০ জন চিকিৎসক নিয়োগের জন্য আট হাজারের বেশি আবেদনকারীর অংশগ্রহণে লিখিত পরীক্ষায় পাস করা ৮২০ জনের মৌখিক পরীক্ষা শুরু হয় গত সোমবার থেকে। পর্যায়ক্রমে আগামী ৮ জুলাই পর্যন্ত এ পরীক্ষা  নেওয়ার কথা ছিল। তবে লিখিত পরীক্ষার ফল ঘোষণার পর থেকে অকৃতকার্য প্রার্থীরা পরীক্ষায় অনিয়ম ও স্বজনপ্রীতির অভিযোগ তুলে পরীক্ষা বাতিল, পুনঃ পরীক্ষার আয়োজন এবং ভিসির পদত্যাগের দাবিতে আন্দোলন শুরু করে।

সব শেষ গত রবিবার থেকে আন্দোলনকারীরা বিএসএমএমইউর প্রশাসনিক ভবনে অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ ও অনশন পালন করে। এর মধ্যেই প্রথম দিনের মৌখিক পরীক্ষা সম্পন্ন করে ভিসির নেতৃত্বাধীন বোর্ড। তবে মঙ্গলবার ভিসি অফিসের আসবাবপত্র ভাঙচুর, রেজিস্ট্রার অধ্যাপক ডা. এ বি এম আব্দুল হান্নাকে লাঞ্ছিত করাসহ উদ্ভূত পরিস্থিতির মধ্যে কর্তৃপক্ষ ওই পরীক্ষা স্থগিত করে। আর আন্দোলনকারীরাও সিন্ডিকেটের সভা পর্যন্ত তাদের কর্মসূচি স্থগিত ঘোষণা করে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা