kalerkantho

রবিবার । ২১ জুলাই ২০১৯। ৬ শ্রাবণ ১৪২৬। ১৭ জিলকদ ১৪৪০

স্বাস্থ্য বীমা চালু করবে সরকার : প্রধানমন্ত্রী

টাঙ্গাইলের মধুপুর, ঘাটাইল ও কালিহাতী উপজেলায় পরীক্ষামূলকভাবে স্বাস্থ্য বীমা কার্যক্রম শুরু হয়েছে

২০ জুন, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



স্বাস্থ্য বীমা চালু করবে সরকার : প্রধানমন্ত্রী

ফাইল ছবি

জনগণের স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিতে সরকার স্বাস্থ্য বীমা চালুর পরিকল্পনা করছে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। পরিকল্পনার অংশ হিসেবে পাইলট প্রকল্পের ভিত্তিতে টাঙ্গাইলের  মধুপুর, ঘাটাইল ও কালিহাতী উপজেলায় দরিদ্র কমিউনিটিতে পরীক্ষামূলকভাবে স্বাস্থ্য বীমা কার্যক্রম শুরু হয়েছে বলেও জানান তিনি।

গতকাল বুধবার সংসদে প্রশ্নোত্তর পর্বে জাতীয় পার্টির সংসদ সদস্য রুস্তম আলী ফরাজীর (পিরোজপুর-৩) প্রশ্নের জবাবে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘জনগণের স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিতকরণের লক্ষ্যে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ সরকার স্বাস্থ্য বীমা চালুর পরিকল্পনা করছে।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, সর্বজনীন স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করার জন্য সরকার ‘হেলথ কেয়ার ফাইন্যান্সিং স্ট্র্যাটেজি ২০১২-২০৩২’ প্রণয়ন করেছে। পাইলট প্রকল্পের এ কৌশলে, প্রথমিকভাবে বিনা মূল্যে স্বাস্থ্যসেবা দিতে ‘স্বাস্থ্য সুরক্ষা কর্মসূচি (এসএসকে)’ শীর্ষক পাইলট প্রকল্প কার্যক্রম গ্রহণ করা হয়েছে।

এসএসকের অধীন টাঙ্গাইল জেলার মধুপুর, ঘাটাইল ও কালিহাতীতে দারিদ্র্যসীমার নিচে বসবাসকারী পরিবারের সদস্যদের ৭৮টি ভর্তিযোগ্য রোগের বিনা মূল্যে সেবা দেওয়া হচ্ছে। টাঙ্গাইলের ওই তিন উপজেলা থেকে পাইলট প্রকল্পটি সংশ্লিষ্ট জেলার আরো ৯টি উপজেলায় সম্প্রসারণ কার্যক্রম শুরু করা হয়েছে জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, এটি সফল হলে পর্যায়ক্রমে সারা দেশে সম্প্রসারণ করা হবে।

৩০ লাখ গণশহীদকে চিহ্নিত করার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে মহান মুক্তিযুদ্ধে ৩০ লাখ গণশহীদকে চিহ্নিত করতে সরকারের পরিকল্পনার কথা তুলে ধরে সংসদ নেতা ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জানিয়েছেন, একাত্তরের ৯ মাসব্যাপী স্বাধীনতাযুদ্ধে সারা দেশে ৩০ লাখ গণশহীদকে চিহ্নিত করা সম্ভব হয়নি। ভবিষ্যতে এ লক্ষ্যে কার্যক্রম পরিচালনার পরিকল্পনা সরকারের রয়েছে।

স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে অধিবেশনে মুক্তিযোদ্ধাসংক্রান্ত প্রশ্নটি উত্থাপন করেন সরকারদলীয় সংসদ সদস্য অসীম কুমার উকিল। জবাবে প্রধানমন্ত্রী জানান, বর্তমান সরকার মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে মহান স্বাধীনতাযুদ্ধে অংশগ্রহণকারী সব বীর মুক্তিযোদ্ধার তথ্য সংগ্রহ করে ডাটাবেইস প্রস্তুতপূর্বক মন্ত্রণালয়ের ওয়েবসাইটে প্রকাশ করেছে। তিনি আরো জানান, বীর মুক্তিযোদ্ধাদের প্রকাশিত তালিকার বাইরে যদি কোনো মুক্তিযোদ্ধা থেকে থাকেন, তা শনাক্ত করে উক্ত তালিকায় প্রকাশ করা সম্ভব হবে।

সরকারদলীয় সংসদ সদস্য বেনজীর আহমদের প্রশ্নের লিখিত জবাবে প্রধানমন্ত্রী শহর ও গ্রামের তফাত কমিয়ে গ্রামীণ অর্থনীতিতে প্রাণসঞ্চালনের মাধ্যমে মজবুত করার লক্ষ্যে তাঁর সরকারের গৃহীত বহুমুখী পরিকল্পনার কথা তুলে ধরেন। তিনি জানান, ধনী ও গরিবের মধ্যে বৈষম্য হ্রাস এবং প্রান্তিক জনগণের সুরক্ষায় আমরা ব্যাপক কার্যক্রম গ্রহণ করেছি।

মন্তব্য