kalerkantho

মঙ্গলবার। ১৬ জুলাই ২০১৯। ১ শ্রাবণ ১৪২৬। ১২ জিলকদ ১৪৪০

স্মরণকালের কঠোর নিরাপত্তা শোলাকিয়ায়

সকাল ১০টায় জামাত

কিশোরগঞ্জ প্রতিনিধি   

৪ জুন, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



স্মরণকালের সবচেয়ে কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থার মধ্যে এবার কিশোরগঞ্জের ঐতিহাসিক শোলাকিয়া মাঠে দেশের সবচেয়ে বড় ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হবে। ২০১৬ সালে শোলাকিয়ায় জঙ্গি হামলা ও সাম্প্রতিক সময়ে বিশ্বের বিভিন্ন স্থানে জঙ্গি হামলার বিষয়গুলো মাথায় রেখে নিরাপত্তাব্যবস্থাকে সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার দিয়ে সাজানো হচ্ছে পুরো আয়োজন।

ঈদের জামাতকে উৎসবমুখর, নির্বিঘ্ন ও নিরাপদ রাখতে চলছে শেষ মুহূর্তের প্রস্তুতি। এটি হবে শোলাকিয়ায় ১৯২তম ঈদুল ফিতরের জামাত। সকাল ১০টায় শুরু হবে ঈদের জামাত। এ জামাতে ইমামতি করবেন ইসলাহুল মুসলিমিন পরিষদের চেয়ারম্যান মাওলানা ফরীদ উদ্দীন মাসঊদ।

জেলা ও পুলিশ প্রশাসন, পৌরসভা এবং ঈদগাহ কমিটি শোলাকিয়ার জামাতকে সফল করতে সচেষ্ট রয়েছে। এরই মধ্যে জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার, র‌্যাব ও বিজিবির কর্মকর্তারা শোলাকিয়া ঈদগাহ মাঠ পরিদর্শন করেছেন।

ঈদের দিন শোলাকিয়ায় পাঁচ প্লাটুন বিজিবি, এক হাজার ২০০ পুলিশ, ১০০ র‌্যাব সদস্য ও বিপুলসংখ্যক আনসার সদস্যের সমন্বয়ে নিশ্ছিদ্র ও কঠোর নিরাপত্তা বলয় গড়ে তোলা হবে। একই সঙ্গে মাঠে সাদা পোশাকে নজরদারি করবেন বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থার সদস্যরা। এ ছাড়া মাঠসহ প্রবেশপথগুলোতে থাকছে সিসি ক্যামেরা ও ১২টি ওয়াচ টাওয়ার। সুনির্দিষ্ট ৩২টি গেট দিয়ে মাঠে প্রবেশ করবে মুসল্লিরা। নজরদারিতে আকাশে উড়বে ড্রোন ক্যামেরা। মাঠের নিরাপত্তায় প্রস্তুত থাকবে মাইন সুপিং ও বোমা নিষ্ক্রিয়করণ দল। নামাজ শুরুর আগে মেটাল ডিটেক্টর দিয়ে পুরো মাঠ তল্লাশি করা হবে। থাকবে আর্চওয়ে। সব মিলিয়ে শোলাকিয়া মাঠে চার স্তরের নিরাপত্তাবলয় থাকছে বলে জানিয়েছে পুলিশ প্রশাসন।

মন্তব্য