kalerkantho

রবিবার । ০৮ ডিসেম্বর ২০১৯। ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ১০ রবিউস সানি ১৪৪১     

১৬ এপ্রিল থেকে ১৫ জেলায় ট্যাংক-লরি ধর্মঘট

নিজস্ব প্রতিবেদক, খুলনা   

১৩ এপ্রিল, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



আগামী ১৬ এপ্রিল থেকে খুলনাসহ ১৫ জেলায় অনির্দিষ্টকালের ধর্মঘটের ডাক দিয়েছে ট্যাংক-লরি মালিক-শ্রমিক ও জ্বালানি তেল ব্যবসায়ীরা। জ্বালানি তেল বিক্রির কমিশন বৃদ্ধিসহ ১৫ দফা বাস্তবায়নের দাবিতে তারা এ ধর্মঘট আহ্বান করেছে। ধর্মঘট চলাকালে তেল উত্তোলন, বিপণন ও পরিবহন বন্ধ থাকবে।

খুলনা জ্বালানি তেল পরিবেশক সমিতির অফিস সেক্রেটারি সরোজ দাশ পিন্টু জানান, ১৫ দফা দাবি আদায়ের লক্ষ্যে গত ২৫ ফেব্রুয়ারি অনুষ্ঠিত ব্যবসায়ীদের সভায় সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। যা মন্ত্রণালয়কে জানানো হয়। মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে আলোচনার জন্য ১০ জনের নাম আহ্বান করা হয়েছিল। যথারীতি নামও পাঠানো হয়। কিন্তু এরপর আর কোনো তৎপরতা চোখে পড়েনি। এ কারণে গত ৩০ মার্চ জ্বালানি তেল ব্যবসায়ীদের আরেক বৈঠকে ১৬ এপ্রিল থেকে অনির্দিষ্টকালের ধর্মঘটের সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। খুলনা বিভাগের ১০ জেলা এবং বৃহত্তর ফরিদপুরের পাঁচ জেলা অর্থাৎ মোট ১৫টি জেলায় এ ধর্মঘট পালিত হবে বলে তিনি উল্লেখ করেন।

ধর্মঘটের আওতাভুক্ত জেলাগুলো হলো—খুলনা, বাগেরহাট, সাতক্ষীরা, নড়াইল, যশোর, মেহেরপুর, কুষ্টিয়া, ঝিনাইদহ, মাগুরা, চুয়াডাঙ্গা, ফরিদপুর, শরীয়তপুর, গোপালগঞ্জ, মাদারীপুর ও রাজবাড়ী।

১৫ দফা দাবিগুলো হলো—জ্বালানি তেল বিক্রির কমিশন কমপক্ষে সাড়ে ৭ শতাংশ করা; জ্বালানি তেল বিক্রির বিষয়টি কমিশন এজেন্ট, নাকি উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান তা পরিষ্কার করা; প্রিমিয়ািম পরিশোধ সাপেক্ষে ট্যাংক-লরি শ্রমিকদের পাঁচ লাখ টাকা দুর্ঘটনা বীমা প্রথা চালু; ট্যাংক-লরির ভাড়া বৃদ্ধি; পেট্রল পাম্পের জন্য কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান অধিদপ্তরের লাইসেন্স গ্রহণ বাতিল; পেট্রল পাম্পের জন্য পরিবেশ অধিদপ্তরের লাইসেন্স গ্রহণ বাতিল; পেট্রল পাম্পে অতিরিক্ত পাবলিক টয়লেট, জেনারেটর স্টোর ও ক্লিনার নিয়োগের বিধান বাতিল; সড়ক ও জনপথ বিভাগ কর্তৃক পেট্রল পাম্পের প্রবেশদ্বারের ভূমির জন্য ইজারা প্রথা বাতিল করা প্রভৃতি।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা