kalerkantho

বুধবার । ২৩ অক্টোবর ২০১৯। ৭ কাতির্ক ১৪২৬। ২৩ সফর ১৪৪১                 

মশাল প্রজ্বালন

একাত্তরের গণহত্যার আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি দাবি

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি ও নিজস্ব প্রতিবেদক, সাভার   

২৬ মার্চ, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



একাত্তরের গণহত্যার আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি দাবি

কালরাত স্মরণে গতকাল রাতে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে মশাল প্রজ্বালন করা হয়। ছবি : কালের কণ্ঠ

১৯৭১ সালের স্বাধীনতাযুদ্ধের সময় ২৫ মার্চে সংঘটিত গণহত্যার আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি দাবি করেছে ঘাতক-দালাল নির্মূল কমিটি। একই সঙ্গে স্বাধীনতাবিরোধীরা যাতে আর কখনো এ দেশে মাথাচাড়া দিয়ে উঠতে না পারে সে বিষয়েও সবাইকে সজাগ থাকার আহ্বান জানিয়েছে সংগঠনটি।

গতকাল সোমবার রাত ৮টায় ৪৯তম গণহত্যা দিবস উপলক্ষে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে আয়োজিত আলোর মিছিল ও আলোচনাসভা থেকে এই দাবি জানানো হয়। সভায় শিক্ষামন্ত্রী ডা দীপু মনি, সাবেক তথ্যমন্ত্রী ও জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের (জাসদ) সভাপতি হাসানুল হক ইনু, বাংলাদেশ ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি ও সাবেক সমাজকল্যাণমন্ত্রী রাশেদ খান মেনন, বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির সভাপতি মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম, একাত্তরের ঘাতক-দালাল নির্মূল কমিটির সহসভাপতি ও বঙ্গবন্ধু অধ্যাপক মুনতাসীর মামুন, সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি গোলাম কুদ্দুছ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। সভায় সভাপতিত্ব করেন একাত্তরের ঘাতক-দালাল নির্মূল কমিটির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি শহীদ জায়া শ্যামলী নাসরিন চৌধুীর।

এক মিনিট অন্ধকারে পুরো দেশ : রাত তখন ৯টা। একে একে নিভে যেতে থাকে সব আলো। এ এক অন্ধকার স্মরণ, শহীদদের স্মৃতিকে অম্লান করে রাখার প্রয়াস। গতকাল সোমবার রাত ৯টায় আলো বন্ধ করে কালরাতে শহীদদের স্মরণ করা হয়।

আয়োজকরা বলেন, এই অন্ধকার আলোর দিশারি হয়ে দেখা দেবে। কালরাতে ঢাকার রাজপথে নেমে এসেছিল সেনা ট্যাংক, ঝাঁঝরা করে ফেলা হয়েছিল প্রতিবাদী স্বাধীনচেতা বাঙালিকে। গত বছর থেকে ব্ল্যাক আউটের মধ্য দিয়ে দেশবাসী স্মরণ করছে ১৯৭১-এর এই দিনে গণহত্যার শিকার শহীদদের।

মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের আয়োজনে এই কর্মসূচি পালিত হয়। এ প্রসঙ্গে মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে বলা হয়, ২৫ মার্চের রাত বাঙালি জাতির জীবনে এক বিভীষিকাময় কালরাত। সেই রাতটিকে স্মরণ করতে গতকাল রাত ৯টা থেকে ৯টা ১ মিনিট পর্যন্ত ঢাকাসহ সারা দেশে ব্ল্যাক আউট কর্মসূচি পালন করা হয়।

সাভার-ধামরাইয়ে মোমবাতি প্রজ্বালন ও আলোর মিছিল : ১৯৭১ সালের ২৫ মার্চ ভয়াল কালরাতে বাঙালিদের ওপর হানাদার বাহিনীর বর্বরোচিত হামলায় নিহত শহীদদের স্মরণে সাভারে মোমবাতি প্রজ্বালন ও আলোর মিছিল করেছে ছাত্র ইউনিয়ন ঢাকা জেলা সংসদ।

গতকাল রাত ৮টার দিকে সাভারের রানা প্লাজা ও চাপাইন মডেল স্কুল শহীদ মিনারে মোমবাতি প্রজ্বালন এবং পরে তারা আলোর মিছিল বের করে সাভারের কয়েকটি এলাকা প্রদক্ষিণ করে।

এ সময় ছাত্র ইউনিয়নের ঢাকা জেলার সাধারণ সম্পাদক আরিফুল ইসলাম সাব্বির বলেন, ১৯৭১ সালের এই রাতে নিরীহ বাঙালির ওপর হায়েনার মতো হামলা করে হানাদার বাহিনী। ঢাকার রাস্তা আর গলি বাঙালির রক্তে রঞ্জিত হয়। এর পরই শুরু হয় বাঙালির মুক্তিযুদ্ধ।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন ঢাকা জেলা ছাত্র ইউনিয়নের সাংগঠনিক সম্পাদক সাইফুল শাওন, সদস্য রাফসান, সাভার থানা ছাত্র ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক খালিদ রেদোয়ান, সাংগঠনিক সম্পাদক বাবলু ইসলাম অর্ণবসহ অন্য নেতারা।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা