kalerkantho

বুধবার । ১৩ নভেম্বর ২০১৯। ২৮ কার্তিক ১৪২৬। ১৫ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

পিকআপচাপায় পা-হারা নিপা বৃত্তি পেয়েছে

‘আব্বুর স্বপ্ন পূরণ করেছি কিন্তু আমার কী হবে?’

যশোর অফিস   

২৬ মার্চ, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



পিকআপচাপায় পা-হারা নিপা বৃত্তি পেয়েছে

‘আব্বুর স্বপ্ন পূরণ করেছি, কিন্তু আমার কী হবে? আমি কী করে স্কুলে যাব? অন্যরা সব হেঁটে বেড়াবে। আর আমি পঙ্গু হয়ে ঘরে বসে থাকব?’ কথাগুলো যশোরের নাভারনে পিকআপচাপায় পা হারানো ষষ্ঠ শ্রেণির ছাত্রী মেফতাউল জান্নাত নিপার (১১)। 

পঞ্চম শ্রেণিতে ট্যালেন্টপুলে বৃত্তি পাওয়ার খবরে আনন্দ উদ্‌যাপন করতে পারেনি এই শিশু শিক্ষার্থী। আন্দোলিত করতে পারেনি ওর পরিবারকেও। কারণ সাফল্যের এই খবর নিপাকে শুনতে হয়েছে হাসপাতালের বেডে শুয়ে। উল্টো ফ্যাল ফ্যাল করে তাকিয়ে থেকেছে শিশুটি।

গতকাল সোমবার যশোর জেনারেল হাসপাতালের মহিলা সার্জারি ওয়ার্ডের ৩ নম্বর কেবিনে গিয়ে দেখা যায় নিপার ভাঙা ডান হাত ধরে মনমরা হয়ে বসে আছেন মা নাসিমা খাতুন। তিনি বললেন, ‘মেয়ে যে ট্যালেন্টপুলে বৃত্তি পাবে এমন বিশ্বাস আমাদের আগে থেকেই ছিল। কিন্তু যে ঘটনা ঘটে গেল তার পর কি আর এই খবরে আনন্দ হতে পারে? তবে যেভাবেই হোক মেয়েকে আমরা পড়াব। ওর ডাক্তার হওয়ার স্বপ্ন পূরণে সাধ্যমতো চেষ্টা করব।’

নিপার বাবা রফিকুল ইসলাম বললেন, ‘পা হারানোর বেদনা কেড়ে নিয়েছে মেয়ের বৃত্তি অর্জনের আনন্দ। একই সঙ্গে আমাদেরও। নাভারনের সবুজ কুঁড়ি প্রি-ক্যাডেট স্কুলের ছাত্রী ছিল আমার মেয়ে। সেখান থেকেই সে ট্যালেন্টপুলে বৃত্তি লাভ করেছে। বুরুজবাগান সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক আনারুল ইসলাম গত রবিবার সন্ধ্যায় ফোনে মেয়ের ট্যালেন্টপুলে বৃত্তি পাওয়ার কথা আমাকে জানান। মেয়ে আমার স্বপ্ন পূরণ করেছে। কিন্তু মেয়ের স্বপ্ন? এখন ওর ডাক্তার হওয়ার স্বপ্ন পূরণের জন্য কৃত্রিম পা লাগিয়ে দেওয়ার ব্যবস্থা করতে প্রধানমন্ত্রীর কাছে আবেদন জানাই। পাশাপাশি এই দুর্ঘটনার জন্য দায়ী গাড়িচালককে অবিলম্বে আটক ও তার দৃষ্টান্তমূলক সাজা চাই।’ 

নিপা যশোরের শার্শা উপজেলার বুরুজবাগান পাইলট বালিকা বিদ্যালয়ের ষষ্ঠ শ্রেণির শিক্ষার্থী ও দক্ষিণ বুরুজবাগান গ্রামের রফিকুল ইসলামের মেয়ে। গত ২০ মার্চ যশোরের নাভারনে নিজ স্কুলের সামনে বেপরোয়া পিকআপের চাপায় পিষ্ট হয় নিপা। জীবন বাঁচাতে ওই দিনই যশোর জেনারেল হাসপাতালে জরুরি ভিত্তিতে কেটে ফেলতে হয় নিপার ডান পা। ওই দুর্ঘটনায় ভেঙেছে ওর বাঁ হাত ও বাঁ পা।

শার্শা থানার ওসি এম মশিউর রহমান জানান, নিপার পা হারানোর ঘটনায় অজ্ঞাতচালককে আসামি করে থানায় মামলা হয়েছে। তবে এখন পর্যন্ত তাকে গ্রেপ্তার করা সম্ভব হয়নি।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা