kalerkantho

রবিবার। ১৭ নভেম্বর ২০১৯। ২ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ১৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

রাজশাহী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ

ফের প্রকল্পের টাকায় বিদেশ যাচ্ছেন ৫ কর্মকর্তা

নিজস্ব প্রতিদেক, রাজশাহী   

১৬ মার্চ, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



ফের প্রকল্পের টাকায় বিদেশ যাচ্ছেন ৫ কর্মকর্তা

রাজশাহী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (আরডিএ) বারনই আবাসিক প্রকল্পের অর্থ ব্যয় করে আবারও বিদেশ সফরে যাচ্ছেন পাঁচ কর্মকর্তা। অথচ এই প্রকল্পের উন্নয়নকাজ এখনো অনেক বাকি। ২০১৬ সালে শুরু হওয়া প্রকল্পটির প্লট এখনো প্রস্তুত কিংবা হস্তান্তরযোগ্য হয়নি। এরই মধ্যে আরডিএর চেয়ারম্যানসহ অন্য কর্মকর্তারা প্রকল্পের টাকায় দুইবার ৩০ দিনের বিদেশ সফর করে এসেছেন। একই প্রকল্পের টাকায় আরডিএর আরো পাঁচ কর্মকর্তা আবারও ১৫ দিনের বিদেশ সফরে যাচ্ছেন আগামী ২০ মার্চ। এই সফরে তাঁরা যাবেন দক্ষিণ কোরিয়া, জাপান, সিঙ্গাপুরসহ ইউরোপের বিভিন্ন দেশে। জানা গেছে, কর্মকর্তাদের এই বিদেশ সফরে ব্যয় হয় কোটি টাকার বেশি। এই টাকা ব্যয় করা হয় বারনই আবাসিক উন্নয়ন প্রকল্প থেকে। 

জানা গেছে, এই প্রকল্পের আওতায় ২০১৫ সালে আগ্রহীদের শতাধিক প্লট বরাদ্দ দেওয়া হয়। পাঁচ লাখ টাকা কাঠা মূল্যের জমি ১০ লাখ টাকায় বিক্রি করে আরডিএ বিপুল পরিমাণ অর্থ সংগ্রহ করে। কিন্তু প্রকল্প সম্পন্ন করে গ্রাহকদের প্লট বুঝিয়ে দিতে এখনো অন্তত দুই বছর লাগবে। প্রকল্প এলাকায় বর্তমানে মাটি ভরাটের কাজ চলছে।

এর আগে ২০১৭ সালের ৪ জুন আরডিএর চেয়ারম্যান বজলুর রহমান, তৎকালীন প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা কমলা রঞ্জন দাস, নির্বাহী প্রকৌশলী আব্দুল্লাহিল তারিক, অথরাইজড অফিসার আবুল কালাম আযাদ, নগর পরিকল্পক আজমেরী আশরাফি, সহকারী নগর পরিকল্পক রাহেনুল ইসলাম রনি ছাড়াও গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের দুজন কর্মকর্তা, চেয়ারম্যানের পরিবারের সদস্যসহ মোট ৯ জন দক্ষিণ কোরিয়া, জাপান এবং  ইউরোপের কয়েকটি দেশে ১৫ দিনের সফরে যান। একই প্রকল্পের অর্থে গত ৩ জানুয়ারি আরডিএর চেয়ারম্যান বজলুর রহমান, নগর পরিকল্পক আজমেরী আশরাফি, নির্বাহী প্রকৌশলী আব্দুল্লাহিল তারিক, হিসাব কর্মকর্তা শহীদুল ইসলাম ছাড়াও মন্ত্রণালয়ের দুই কর্মকর্তাসহ ছয়জন এশিয়ার দুটি দেশ ছাড়াও ইউরোপের যুক্তরাজ্য,  ফ্রান্স ও ইতালিতে ১৫ দিনের সফরে যান।

অন্যদিকে আগামী ২০ মার্চ একই প্রকল্পের টাকায় তৃতীয় দফায় বিভিন্ন দেশ সফরে যাচ্ছেন আরডিএর পাঁচ কর্মকর্তা। এর মধ্যে রয়েছেন প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা রবিউল ইসলাম, সহকারী প্রকৌশলী শেখ কামরুজ্জামান, অথরাইজড অফিসার আবুল কালাম আযাদ এবং মন্ত্রণালয়ের দুই কর্মকর্তা।

বারনই আবাসিক প্রকল্পের টাকায় তৃতীয় দফায় বিদেশ সফরের বিষয়ে জানতে চাইলে রাজশাহী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা রবিউল ইসলাম কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘প্রকল্পের কর্মসূচিতে বিদেশ সফরের সংস্থান  রয়েছে। এ কারণে মন্ত্রণালয়ের অনুমোদন নিয়েই বিদেশ সফরে যাওয়া হচ্ছে।’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা