kalerkantho

বুধবার । ২০ নভেম্বর ২০১৯। ৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ২২ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

ড্যাফোডিলের সমাবর্তনে শিক্ষামন্ত্রী

একুশ শতকের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় প্রযুক্তিতে দক্ষ হওয়ার বিকল্প নেই

নিজস্ব প্রতিবেদক, সাভার (ঢাকা)   

১৪ মার্চ, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



একুশ শতকের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় প্রযুক্তিতে দক্ষ হওয়ার বিকল্প নেই

ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির অষ্টম সমাবর্তন অনুষ্ঠানে গ্র্যাজুয়েটদেরকে স্বর্ণপদক প্রদান করেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি। ছবি : কালের কণ্ঠ

বর্ণাঢ্য আয়োজনের মধ্য দিয়ে ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির (ডিআইইউ) অষ্টম সমাবর্তন অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল বুধবার বিশ্ববিদ্যালয়ের স্থায়ী ক্যাম্পাস আশুলিয়ায় এ সমাবর্তন অনুষ্ঠিত হয়। সমাবর্তন অনুষ্ঠানে বিশ্ববিদ্যালয়ের চ্যান্সেলর রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদের প্রতিনিধি হিসেবে সভাপতিত্ব করেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি, এমপি। এতে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কামিশনের চেয়ারম্যান অধ্যাপক আব্দুল মান্নান এবং সমাবর্তন বক্তা হিসেবে বক্তব্য দেন থাইল্যান্ডের সিয়াম ইউনিভার্সিটির প্রেসিডেন্ট ড. পর্নচাই মঙ্গখোনভানিত। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেন ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান ড. মো. সবুর খান। অন্যান্যের মধ্যে আরো বক্তব্য দেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. ইউসুফ মাহবুবুল ইসলাম, উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. এস এম মাহবুব উল হক মজুমদার, মানবিক ও সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ডিন এ এম এম হামিদুর রহমান, প্রকৌশল অনুষদের ডিন প্রফেসর সামছুল আলম, এলাইড হেলথ সায়েন্সেস অনুষদের ডিন প্রফেসর আহমেদ ইসমাইল মোস্তফা এবং বাণিজ্য ও উদ্যোক্তা অনুষদের ডিন প্রফেসর ড. মাসুম ইকবাল প্রমুখ। ভ্যালিডেকটোরিয়ান বক্তব্য প্রদান করেন আইন বিভাগের শিক্ষার্থী সাইফুল ইসলাম।

সমাবর্তন অনুষ্ঠানে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেন, ‘একুশ শতকের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলার জন্য প্রযুক্তিতে দক্ষ হওয়া ছাড়া উপায় নেই। ড্যাফোডিল বিশ্ববিদ্যালয় সেই জরুরি কাজটিই করছে।’ এ সময় মন্ত্রী ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির উদ্যোক্তা উন্নয়ন কার্যক্রমের ভূয়সী প্রশংসা করে তিনি বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষকে বিশেষভাবে ধন্যবাদ জানান।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা