kalerkantho

বুধবার । ২২ জানুয়ারি ২০২০। ৮ মাঘ ১৪২৬। ২৫ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১     

প্রকল্প বাস্তবায়নে বনভূমি ও রাস্তার গাছ কাটার ওপর নিষেধাজ্ঞা

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১২ মার্চ, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



প্রকল্প বাস্তবায়নের নামে দেশের সব বনাঞ্চল ও বনভূমি বা রাস্তার গাছ কাটার ওপর ছয় মাসের নিষেধাজ্ঞা দিয়েছেন হাইকোর্ট। একই সঙ্গে প্রতিটি প্রকল্প বাস্তবায়নের ক্ষেত্রে গাছ কাটা ও লাগানোর বিষয়ে একটি কর্মপরিকল্পনা প্রতিবেদন আকারে এই সময়ের মধ্যে আদালতে দাখিল করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

বিচারপতি শেখ হাসান আরিফ ও বিচারপতি রাজিক আল জলিলের হাইকোর্ট বেঞ্চ গতকাল সোমবার এই আদেশ দেন। আদালত অন্তর্বর্তীকালীন নির্দেশনার পাশাপাশি রুল জারি করেন। বাংলাদেশ পরিবেশ আইনজীবী সমিতির (বেলা) করা রিট আবেদনে এই আদেশ দেওয়া হয়।

আদালতে রিট আবেদনকারীর পক্ষে আইনজীবী ছিলেন অ্যাডভোকেট সৈয়দা রিজওয়ানা হাসান ও সাইদ আহমেদ কবির। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল মোখলেছুর রহমান। এর আগে গাছ কাটা বন্ধের জন্য পাঠানো আইনি নোটিশের জবাব না পেয়ে গত ৫ ফেব্রুয়ারি হাইকোর্টে রিট আবেদন করা হয়।

রুলে প্রকল্পের নামে দেশের সব বনাঞ্চল ও বনভূমি থেকে গাছ কাটা বন্ধ করতে বিবাদীদের নিষ্ক্রিয়তা কেন বেআইনি ও অবৈধ ঘোষণা করা হবে না এবং অবশিষ্ট বন সংরক্ষণে কেন নির্দেশ দেওয়া হবে না তা জানতে চাওয়া হয়েছে। মন্ত্রিপরিষদ, সংসদ সচিবালয়, পরিবেশ, স্থানীয় সরকার, সড়ক, যুব ও ক্রীড়া এবং জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ সচিব, পরিবেশ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক, তিতাস গ্যাসের ব্যবস্থাপনা পরিচালক, প্রধান বন সংরক্ষক, মানিকগঞ্জ, কক্সবাজার ও গাজীপুরের জেলা প্রশাসক, এসপিসহ ২০ বিবাদীকে চার সপ্তাহের মধ্যে রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে।

অ্যাডভোকেট সাইদ আহমেদ কবির সাংবাদিকদের বলেন, সরকার ইচ্ছামতো বনাঞ্চল উজাড় করে একের পর এক প্রকল্প গ্রহণ করছে। এ নিয়ে গত বছরের ১৪ আগস্ট সংবাদপত্রে প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। এরপর বেলার পক্ষ থেকে গত ২০ ফেব্রুয়ারি বিবাদীদের লিগ্যাল নোটিশ দেওয়া হয়। নোটিশের জবাব না পেয়ে গত ৫ মার্চ রিট আবেদন করা হয়।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা